নাঈমের ‘ব্যাক টু ব্যাক’ সেঞ্চুরিতে রূপগঞ্জের রান পাহাড়

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:২৭ পিএম, ২৩ এপ্রিল ২০১৯

চলতি ঢাকা প্রিমিয়ার লিগটা স্বপ্নের মতোই কাঁটালেন লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের তরুণ বাঁহাতি ওপেনার মোহাম্মদ নাইম শেখ। লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারে খেলা আগের ম্যাচে ছিলো না কোনো সেঞ্চুরি, করেছিলেন মাত্র ৪টি ফিফটি।

আর এবারের লিগের ১৬ ম্যাচ শেষে এ সংখ্যাগুলোকে ৩টি সেঞ্চুরি এবং ৯টি ফিফটিতে পরিণত করেছেন ১৯ বছর বয়সী এ বাঁহাতি তরুণ। চলতি লিগে ১৬ ম্যাচ শেষে নাইমের রান ৮০৭, হাঁকিয়েছেন ৫টি হাফসেঞ্চুরি এবং ৩টি সেঞ্চুরি।

এর মধ্যে সবশেষ সেঞ্চুরিটি আবার করলেন আজ, তাও টানা দ্বিতীয় ম্যাচে। সুপার লিগের শেষ ম্যাচে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের মুখোমুখি হয়েছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। শিরোপা জেতার সম্ভবান টিকিয়ে রাখতে এ ম্যাচে প্রাইম ব্যাংককে হারাতেই হবে রূপগঞ্জের।

এমন ম্যাচেই নিজের ক্যারিয়ার সর্বোচ্চ ১৩৬ রানের ইনিংস খেলেছেন নাইম শেখ। আগের ম্যাচেই শক্তিশালী আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে অপরাজিত ১২৩ রান করেছিলেন তিনি। নাইমের এ ‘ব্যাক টু ব্যাক’ সেঞ্চুরিতে ভর করে ৪ উইকেট হারিয়ে ৩২৭ রানের বিশাল সংগ্রহ পেয়েছে রূপগঞ্জ।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে হেরে আগে ব্যাট করতে নামে রূপগঞ্জ। উদ্বোধনী জুটিতে মাত্র ১৮.৪ ওভারে ১২৯ রান যোগ করেন মেহেদি মারুফ এবং নাইম শেখ। ৪৮ বলে ৫৪ রান করে আউট হন মারুফ। খেলতে থাকেন নাইম।

দ্বিতীয় উইকেটেও আসে বড় জুটি। মুমিনুল হককে সঙ্গে নিয়ে ১১৪ রান যোগ করেন নাইম। মুমিনুল আউট হন ৫৯ বলে ৫২ রানের ইনিংস খেলে। ততক্ষণে লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের তৃতীয় সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন নাইম। ৪০ ওভার শেষে রূপগঞ্জের সংগ্রহ দাঁড়ায় ২ উইকেটে ২৪৯ রান।

মনে হচ্ছিলো সাড়ে তিনশর বেশি রান করে ফেলবে তারা। কিন্তু ৪২তম ওভারের প্রথম বলে নাইম ১৩৬ রান করে ফিরলে আশানুরূপ সংগ্রহ পায়নি রূপগঞ্জ। শেষদিকে জাকের আলি ১৯ বলে ২৭, মুক্তার আলি ৯ বলে ২২ রান করলে ৪ উইকেটে ৩২৭ রানে থামে তাদের ইনিংস। নাঈম ইসলাম অপরাজিত থাকেন ২৪ রান করে।

এসএএস/এমকেএইচ