অন্যরকম এক রেকর্ডের সামনে দাঁড়িয়ে সাকিব-মুশফিক-তামিম

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৩৬ পিএম, ২৯ জুন ২০১৯

তিনজনেরই দেশের হয়ে বিশ্বকাপ যাত্রাটা শুরু হয়েছিলো একসাথে। ২০০৭ বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে সাকিব-তামিম- মুশফিক এই ত্রয়ীর একসঙ্গে হয় বিশ্বকাপ অভিষেক। অভিষেকেই নিজেদের ভবিষ্যৎ তারকা হয়ে ওঠার বার্তাও দিয়ে রাখেন তারা সবাই। ভারতের বিপক্ষে ওই ম্যাচে (তামিম ৫৩ বলে ৫১, মুশফিক ১০৭ বলে ৫৬ ও সাকিব ৮৬ বলে ৫৩) তিনজনই করেন ফিফটি।

তারা তিনজনই সময়ের সঙ্গে বাংলাদেশ দলের ভরসা হয়ে উঠেছেন। একসঙ্গে দলকে জিতিয়েছেন অসংখ্য ম্যাচও। এক যুগ দেশের হয়ে খেলা সাকিব-তামিম- মুশফিকরা ইংল্যান্ডে গিয়েছেন নিজেদের চতুর্থ বিশ্বকাপ খেলতে। এই বিশ্বকাপেই অনন্য এক মাইলফলকের সামনে দাঁড়িয়ে এখন বাংলাদেশ ক্রিকেটের এই ত্রয়ী।

২০০৭ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত টানা চার বিশ্বকাপে এই তিনজন খেলেছেন ২৭ ম্যাচ। গত ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে এই তিনজন একসঙ্গে মাঠে নেমেই ছুঁয়ে ফেলেন অনন্য এক মাইলফলক। বিশ্বকাপে তিন ক্রিকেটারের টানা ২৭ ম্যাচ খেলার কীর্তি আছে দু’বার। দুটিই শ্রীলংকানদের।

১৯৯৬ থেকে ২০০৭ সাল এই চার বিশ্বকাপে টানা ২৭ টি ম্যাচ খেলেছিলেন তিন লঙ্কান কিংবদন্তি জয়সুরিয়া-মুরালিধরন ও চামিন্ডা ভাস। এরপর ২০০৭ থেকে ২০১৫ এই চার বিশ্বকাপে টানা ২৭ ম্যাচ খেলেন আরেক কিংবদন্তি ত্রয়ী মাহেলা জয়বার্ধনে-কুমার সাঙ্গাকারা ও তিলকারত্নে দিলশান। এই বিশ্বকাপে পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নেমেই এই দুই রেকর্ড স্পর্শ করেন বাংলাদেশের সাকিব-তামিম ও মুশফিক।

এবার তাদের সামনে সুযোগ শ্রীলংকার দুই প্রজন্মের কিংবদন্তি ত্রয়ীদের ছাড়িয়ে যাওয়ার। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে একসঙ্গে তিনজন মাঠে নামলেই ছাড়িয়ে যাবেন তাদের।

বিশ্বকাপে ত্রয়ী হিসেবে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার রেকর্ড আছে অস্ট্রেলিয়ার গ্লেন ম্যাকগ্রা-রিকি পন্টিং ও আ্যাডাম গিলক্রিস্টের দখলে। সাকিব-তামিম-মুশফিকদের সামনে এই বিশ্বকাপেই সুযোগ থাকছে অস্ট্রেলিয়ান ত্রয়ীদের স্পর্শ করার সুযোগ। তবে এ জন্য বাংলাদেশকে খেলতে হবে ফাইনালে। বাংলাদেশ ফাইনালে পৌঁছালে ও সাকিব-তামিম-মুশফিক তিনজনই বাকি ম্যাচগুলোর সবগুলোতে একাদশে থাকলে ছুঁয়ে ম্যাকগ্রা-পন্টিং ও গিলক্রিস্ট ত্রয়ীকে ছুঁয়ে ফেলবেন তারা।

বিশ্বকাপে ত্রয়ীর টানা সবচেয়ে বেশি ম্যাচ
২৭ ম্যাচ : সনাৎ জয়াসুরিয়া+মুত্তিয়া মুরালিধরন+চামিন্ডা ভাস
শ্রীলঙ্কা (২১ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৬-১২ এপ্রিল ২০০৭)

২৭ ম্যাচ : মাহেলা জয়াবর্ধনে+কুমার সাঙ্গাকারা+তিলকারত্নে দিলশান
শ্রীলঙ্কা (১৫ মার্চ ২০০৭-১৮ মার্চ ২০১৫)

২৭* : সাকিব আল হাসান+তামিম ইকবাল+মুশফিকুর রহীম
বাংলাদেশ (১৭ মার্চ ২০০৭-২৪ জুন ২০১৯)

বিশ্বকাপে ত্রয়ীর সবচেয়ে বেশি ম্যাচ :
৩১ ম্যাচ : গ্লেন ম্যাকগ্রা+রিকি পন্টিং+অ্যাডাম গিলক্রিস্ট
অস্ট্রেলিয়া (১৬ মে ১৯৯৯-২৮ এপ্রিল ২০০৭)

৩১ ম্যাচ : সনাৎ জয়াসুরিয়া+মুত্তিয়া মুরালিধরন+চামিন্ডা ভাস
শ্রীলঙ্কা (২১ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৬-২৮ এপ্রিল ২০০৭)

২৮ ম্যাচ : মুত্তিয়া মুরালিধরন+মাহেলা জয়াবর্ধনে+কুমার সাঙ্গাকারা
শ্রীলঙ্কা (১০ ফেব্রুয়ারি ২০০৩-২ এপ্রিল ২০১১)

২৭ ম্যাচ : মাহেলা জয়াবর্ধনে+কুমার সাঙ্গাকারা+তিলকারত্নে দিলশান
শ্রীলঙ্কা (১৫ মার্চ ২০০৭-১৮ মার্চ ২০১৫)

২৭* ম্যাচ : সাকিব আল হাসান+তামিম ইকবাল+মুশফিকুর রহীম
বাংলাদেশ (১৭ মার্চ ২০০৭-২৪ জুন ২০১৯

এমএইচবি/আইএইচএস/এমএস