বিশ্বকাপ শুরু হতেই ঝামেলায় প্রোটিয়ারা, শঙ্কায় ডি ককের ক্যারিয়ার

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:২৩ পিএম, ২৬ অক্টোবর ২০২১

‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলনে শরীক না হয়ে কি নিজের ক্যারিয়ারটাই শেষ করে দিলেন কুইন্টন ডি কক? আজ (মঙ্গলবার) দুবাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টস করতে নেমে দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা জানালেন, দলের অন্যতম সেরা তারকা ডি কক খেলছেন না।

কেন? বাভুমার দাবি, ব্যক্তিগত কারণেই নিজে থেকে সরে গেছেন ডি কক। তবে প্রোটিয়া গণমাধ্যমের খবর ভিন্ন। তারা বলছে, ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার (বিএলএম) আন্দোলনে সমর্থন না দিয়েই বোর্ডের চক্ষুশূল হয়েছেন উইকেটরক্ষক এই ব্যাটসম্যান।

প্রোটিয়া বোর্ডের পক্ষ থেকে নির্দেশ আছে, বিশ্বকাপে দলের ক্রিকেটারদের অবশ্যই ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলনে শরীক থাকতে ম্যাচের আগে হাঁটু গেড়ে বসতে হবে।

DE-COCK-1.jpg

কিন্তু ডি কককে এর আগেও এতে অসম্মতি জানাতে দেখা গেছে। দেখা গেছে, খেলোয়াড়রা সবাই হাঁটু গেড়ে বসলেও এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কোমড়ে হাত দিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এ নিয়ে বোর্ডের সঙ্গে তার কোন্দল শুরু হয়েছিল বলে জানিয়েছে প্রোটিয়া কয়েকটি গণমাধ্যম।

ইংল্যান্ডের ‘স্কাই স্পোর্টস’ তো সরাসরিই লিখেছে, বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে হাঁটু গেড়ে না বসায় বিশ্বকাপ থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে ডি কককে।

এখনও মূল কারণ পরিষ্কার না হলেও ইতিমধ্যে ভারতের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান দিনেশ কার্তিক এবং জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার হর্শে ভোগলে ডি ককের ক্যারিয়ার নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন।

বিস্ময়ের ইমোজি দিয়ে দিনেশ কার্তিক টুইটারে লিখেছেন, ‘বিএলএম মুভমেন্টে সমর্থন না দেওয়ায় খেলছেন না কুইন্টন ডি কক!’

হর্শে ভোগলে লিখেছেন, ‘আমার ভয় হচ্ছে, ডি কক ইস্যুতে না আবার আমরা শেষ কথা শুনে ফেলি! যদি আবারও তাকে প্রোটিয়া জার্সিতে দেখা না যায়, আমি বিস্মিত হবো না।’

এমএমআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]