‘স্বপ্ন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়, তবে রিয়ালই সেরা’

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:১৭ পিএম, ০২ এপ্রিল ২০১৮

জিয়ানলুইজি বুফন। শুধু ইতালি কেন, বর্তমান সময়েরই নয় শুধু, ফুটবল ইতিহাসে সর্বকালের সেরা যে ক’জন গোলরক্ষককে বিবেচনা করা হয়, তাদের মধ্যে অন্যতম তিনি। বিশ্বকাপ, ইউরো থেকে হেন কোনো শিরোপা নেই, যা বুফনের হাতে ওঠেনি; শুধুমাত্র একটি ছাড়া। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ট্রফি। ইতালিয়ান কিংবদন্তি এই গোলরক্ষকের স্বপ্নটা পূরণ হয়নি এখনও পর্যন্ত।

সম্ভবত এবারই শেষ সুযোগ বুফনের। গতবারও ছিল। ফাইনাল পর্যন্ত দলকে টেনে নিয়ে গিয়েছিলেন তিনি; কিন্তু ফাইনালে যে দেখা হয়ে গেলো রিয়াল মাদ্রিদের! তাদের কাছে হেরে শেষ পর্যন্ত বুফনের আর চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপাটা জেতা হলো না। এবারও তিনি এবং তার দল উঠে গেছে কোয়ার্টার ফাইনালে; কিন্তু এবারও যে দুর্ভাগ্য! গতবারের ফাইনালের প্রতিপক্ষ রিয়াল মাদ্রিদ, এবার পড়ে গেলো কোয়ার্টার ফাইনালেই।

গত বছর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদ বুফনকে চারবার পরাস্ত করেছিল। ৪-১ গোলে জুভেন্টাসকে হারিয়ে ১২তম চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা জিতে নিয়েছিল রিয়াল মাদ্রিদ। এ কারণে, বুফন মনে করেন কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে রিয়াল মাদ্রিদকে নক আউট করে দেয়া খুব সহজ কাজ হবে না। বরং, এটা হবে সবচেয়ে কঠিন। নিজে তিনি প্রথমবারেরমত চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা জিততে চান; কিন্তু বুফন মনে করেন ঐতিহাসিকভাবেই ফেবারিট হচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদ।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে নানা বিষয় নিয়ে অনেক কথাই বলেছেন বুফন। তার সে সাক্ষাৎকারটিই তুলে ধরা হলো জাগো নিউজের পাঠকদের জন্য...

প্রশ্ন: কার্ডিফের ফাইনালের পর মাত্র ৩০০ দিন পার হলো (আবারও মুখোমুখি রিয়াল মাদ্রিদের)
বুফন : আমি এটা জানি এবং একই সঙ্গে এটাও জানি যে, আমার বয়স কিন্তু ৪০। সুতরাং, আমি কিন্তু খুব বেশি বদলে যাইনি। আমরা শুধু আশা করতে পারি, এই সময়টা আগের চেয়ে কিছুটা ভিন্ন হবে। একই সঙ্গে বিশ্বাস করি, কার্ডিফে যা হয়েছে, আমরা এবার সেই অনুভতিটা বদলে দিতে পারবো। সে সমার্থ্য আমাদের রয়েছে।

প্রশ্ন: আপনি আগে ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন, দুই লেগের রাউন্ডে জুভেন্তাসের সামর্থ্য রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদকে হারানোর। তাহলে, কেন সেটা ফাইনালে মাত্র এক লেগের ম্যাচে পারা যায় না?
বুফন : আসলে এখানে তো কোনো ব্যাখ্যা নেই। তবে আমি তো অবশ্যই চাই, ফাইনাল জিততে। একই বিষয়টা আমাদের জন্য প্রযোজ্য বার্সেলোনার ক্ষেত্রেও। আমরা ১৮০ মিনিটের লড়াইয়ে জিততে পারি। তবে ৯০ মিনিটের লড়াইয়ে হারতেও পারি। ১৮০ মিনিটের মত করেই ফাইনালে খেলা শুরু করা উচিৎ আমাদের। তাহলে একটা ব্যাখ্যা খুঁজে পেতাম আমরা। তবে এটা তো ঠিক, এই লেভেলে আমরা কিভাবে খেলি সেটা দেখাতে পেরেছি। তবে, এটাও স্পষ্ট যে, একটি দল ১৮০ মিনিটের যে মানসিকতা নিয়ে খেলে, ৯০ মিনিটের ম্যাচের সেই মানসিকতা এক হয় না।

প্রশ্ন: চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে এমন কোনো ঘটনার পূনরাবৃত্তি চান, যেটা আপনার স্মৃতি উজ্জ্বল?
বুফন : অবশ্যই। এটা কখনও পরিবর্তন হবে না। ওইদিন অবশ্যই সবচেয়ে শক্তিশালী দলটিরই জয় হয়েছে। যেটা প্রয়োজন ছিল আমাদের পক্ষে। এবার সেই পর্যায়ে গিয়ে আমাদের সামর্থ্যের প্রয়োগটা ঘটাতে চাই। আমরা আমাদের মত করে খেলে চেষ্টা করবো বিষয়টাকে নিজেদের পক্ষে নিয়ে আসতে।

প্রশ্ন: কার্ডিফ ফাইনালে এমন কী হয়েছিল যে, এতবড় স্কোরলাইন গেলো আপনাদের বিপক্ষে?
বুফন : ওইদিন তো সেরা দলটিই জিতেছে। তবে আমরাও এত খারাপ না যে এত বড় ব্যবধানে হেরে যাবো। এ ধরনের ম্যাচে এমন কিছু মুহূর্ত থাকে, যেখানে ভাগ্যটাই আপনার হাসি ফিরিয়ে দিতে পারে কিংবা কেড়ে নিতে পারে। ওইদিন আসলে ভাগ্য আমাদের সহযোগিতা করেনি।

প্রশ্ন: আপনি কি জানেন, রিয়াল মাদ্রিদকে হারাতে হলে আসলে কী করতে হবে?
বুফন : মাঠে আমাদেরকে নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী সেরাটা খেলতে হবে। যেটা পারেন একমাত্র আমাদের কোচ। তিনিই আমাদের কাছ থেকে সেরাটা বের করে নিতে পারেন।

প্রশ্ন: কার্ডিফ ফাইনালে হারের পর আপনি বলেছিলেন, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ট্রফি জয় করা একটি অসম্ভব স্বপ্ন। এবার আবারও রিয়ালের মুখোমুখি এবং সেই একই মানসিকতা কি এখনও আপনার মধ্যে রয়েছে?
বুফন : রিয়াল মাদ্রিদ অবশ্যই জুভেন্টাসের চেয়ে অনেক ভালো দল। আমি আসলে এ কারণে বলিনি ওই কথাটা। এ কথাটা তো ইতিহাসই বলছে। সম্মান এবং নাম্বারের ওপর ভিত্তি করে। এ ধরনের পরিস্থিতিতে আমি মনে করি, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ট্রফি জয় করাটা স্বপ্নই থেকে যাবে আমার কাছে। এটা এমন একটি জিনিস, যা অর্জন করা আমরা জন্য সত্যিই খুব কঠিন। আমরা রিয়ালের বিপক্ষে লড়াই করতে পারি মাত্র; কিন্তু তারা তাদের ইতিহাসটাই তো দেখিয়ে দেয়। গত কয়েক বছর ধরে সেটাই দেখাচ্ছে যে তারা সত্যিই কিছুটা বিশেষ এবং কিছুটা ভিন্নতর।

প্রশ্ন: সেটা এমন কি যে, যা তাদেরকে ‘ভিন্ন’ করে তুলছে?
বুফন : ভালো প্রশ্ন। প্রথমত তারা কয়েকটি দিক থেকে বিশ্বের সেরা একটি দল। এটা নিয়ে কারও কোনো সন্দেহ আছে? সর্বশেস চারটি বছরে তিনবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ট্রফি জয় করাই তো তাদের সম্পর্কে সব কিছু বলে দেয়। তারা অবশ্যই নাম্বার ওয়ান এবং কেউ এটাকে অস্বীকার করতে পারবে না।

প্রশ্ন: তাহলে কি রিয়াল মাদ্রিদ ইউরোপে অপরাজেয়?
বুফন : না, কোনো দলই অপরাজেয় নয়। তবে তারা খুবই কঠিন একটি দল, যাদেরকে হারানো যায়। রিয়াল মাদ্রিদ অবশ্যই ফেবারিট একটি দল। তবে মাঠে নামলে সেটা হয়ে যাবে ৫০ : ৫০। আমাদেরকে অবশ্যই উচ্চাকঙ্খী হতে হবে। তাদের ইতিহাস এবং বর্তমান অবস্থাও পরিকল্পনায় আনতে হবে। জুভেন্টাসও একটা গ্রেট টিম। যারা জানে কিভাবে শিরোপা জয় করতে হয়।

প্রশ্ন : আপনি কি মনে করেন এবারের প্রথম লেগের ম্যাচটি কার্ডিফ ফাইনাল কিংবা তিন বছর আগের ম্যাচের মত হবে?
বুফন : প্রতিটি ম্যাচই তো ভিন্ন ভিন্ন। আমি অবশ্যই চাইবো না এই ম্যাচটা কার্ডিফের মতো হোক। আমরা ভালো খেলি, তবে আমরা ফেবারিট নই। আমরা জানি প্রতিপক্ষ আমাদের চেয়ে সেরা এবং অনেক উঁচুতে। তবে, শেষ বাঁশি না বাজা পর্যন্ত যে কারও গোল দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। একই অবস্থা হতে পারে এস্টাডিও বার্নাব্যুতে ফিরতি লেগের ম্যাচেও।

প্রশ্ন: ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো তো রয়েছেন এখন সেরা ফর্মে। তিনি তো চাইবেন ইতিহাসের পূনরাবৃত্তি ঘটানোর জন্য।
বুফন : ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর প্রতি আমার সীমাহীন প্রশংসা। তিনি বয়সের সঙ্গে সঙ্গে যেন নিজেকে আরও সেরা প্রমাণ করে চলছেন। আমি তাকে পছন্দ করি এবং প্রশংসা করি এ কারণে যে, যিনি এমন এক ব্যক্তি যিনি সত্যিকারার্থে জানেন, আসলে তিনি কী করছেন! এবং তিনি সব সময়ই রাজকীয়। গত কয়েক বছরে এটাও দেখিয়েছেন যে, তিনি কতটা মেধাবি। তিনি নিজের পজিশন পরিবর্তন করে নিয়েছেন। মাঠে শক্তির অপচয় করেন না এবং এখনও তিনি মাঠে প্রতিপক্ষের জন্য মারাত্মক একজন ফুটবলার। গোলের সামনে তো তিনি সত্যিকার খুনি। তার আগে মাত্র একজন খেলোয়াড়কে দেখেছি, যিনি এ ধরনের নিখুঁত এবং স্বচ্ছ শট নিতে পারতেন, তিনি ডেভিড ত্রেজেগে। আমি খুবই সৌভাগ্যবান যে, ব্রাজিলিয়ান রোনালদো থেকে শুরু করে জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচের বিপক্ষেও খেলেছি। কিন্তু ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে দেখেছি যিনি একের পর এক রেকর্ডই গড়ে গেছেন এবং আমার সম্পূর্ণ পছন্দ এবং সম্মান অর্জন করেছেন।

প্রশ্ন : এই সোমবার আপনার বন্ধু ইকার ক্যাসিয়াস তার ক্যারিয়ারের ১০০০তম ম্যাচ খেলতে নামছে?
বুফন : পিটার চেকের সঙ্গে ক্যাসিয়াস এবং আমি- তিনজন মিলে ফুটবলের আগে এবং পরে মিলে একটা যুগ তৈরি করেছিলাম। আমরা যদি নিজের ওপর দলের আস্থাটা ধরে রাখতে পারি, তাহলে বলবো প্রথমে রিয়াল মাদ্রিদ এবং পরে পোর্তো ক্যাসিয়াসকে বিরাট মূল্য দিয়েছে এবং তিনি নিজেও সেই আস্থা অর্জন করে নিয়েছেন। এটা আসলে সত্যিকারার্থেই স্বাভাবিক একটা বিষয় নয়।

আইএইচএস/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :