নিজেদের ফেভারিট ভাবছেন না জিদান

স্পোর্টস ডেস্ক
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:০৬ পিএম, ২৬ মে ২০১৮

শনিবার রাতে কিয়েভে উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের মুখোমুখি হচ্ছে আসরটির বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ। এ নিয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো ফাইনাল খেলছে রিয়াল এবং গত পাঁচবারের মধ্যে এটি রিয়ালের চতুর্থ ফাইনাল। এবারও তারা ফাইনালে আসার পথে হারিয়েছে ফ্রান্সের চ্যাম্পিয়ন পিএসজি, ইতালির চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস এবং জার্মান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখকে।

অন্যদিকে লিভারপুল চ্যাম্পিয়নস লিগে এ মৌসুমে দুর্দান্ত খেললেও ঘরোয়া লিগ, প্রিমিয়ার লিগের চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটির চেয়ে ছিল ২৫ পয়েন্ট পিছিয়ে। চতুর্থ হয়ে লিগ শেষ করেছে তার। শেষবার তারা চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালও খেলেছিলো ২০০৭ সালে এবং সর্বশেষ জিতেছিলো ২০০৫ সালে।

ফুটবল বিশ্লেষক এবং পণ্ডিতরা তাই রিয়াল মাদ্রিদকেই পরিষ্কার ফেবারিট হিসেবে দেখছেন। কিন্তু ফাইনালের আগে নিজেদের এত বেশি ফেবারিট মানতে রাজি নন লস ব্লাঙ্কোজদের কোচ জিনেদিন জিদান। কিয়েভে ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে এ ফরাসি বলেছেন, ‘মানুষ অনেক কিছুই বলতে পারে; কিন্তু আমরা জানি এটা এমন কিছু নয়। এটি একটি ফিফটি-ফিফটি ম্যাচ হতে চলেছে। ঠিক অন্যসব ফাইনালের মতোই। আমাদের জিততে হলে অবশ্যই ভালো একটি ম্যাচ খেলতে হবে। ড্রেসিংরুমে আমরা নিজেদের ফেবারিট ভাবছি না।’

অন্যদিকে ফাইনালের একাদশ নির্বাচনে বেশ কঠিন পরীক্ষাতেই পড়তে হবে জিদানকে। ফর্মের তুঙ্গে থাকা গ্যারেথ বেল, লুকাস ভাসকুয়েজ, আসেনসিও এবং রিয়ালকে ফাইনালে তোলা ইসকো, বেনজেমার মধ্যে যে কোন দুইজনকে একাদশে রাখতে হবে এ ফরাসি কোচকে। মধুর এক সমস্যাতেই পড়েছেন তিনি।

এ নিয়ে জিদান বলেন, ‘কোনো কোচের জন্য সবচেয়ে বাজে মহূর্ত হলো, যখন তাকে কোন ফাইনালের জন্য একাদশ নির্বাচন করতে হয়। কিছু খেলোয়াড় কখনো সন্তুষ্ট থাকবে না। তবে এটা আমার দায়িত্ব। সবসময়ই কোন না কোন খেলোয়াড় অসন্তুষ্ট থাকবে; কিন্তু যখনই ম্যাচ শুরু হবে তারা অবশ্যই দলের সাথেই থাকবে।’

রোনালদোর ফিটনেস নিয়েও কথা বলেছেন দলটির কোচ। রিয়ালের শেষ লিগ ম্যাচে এক গোল করে প্রমাণও দিয়েছেন, তিনি আজকের ম্যাচের জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত। জিদান বলেন, ‘ক্রিশ্চিয়ানো সুস্থ আছে। সে ১৪০% ফিট রয়েছে, কোন চিন্তা নেই। আজকে (শুক্রবার) আমাদের শেষ ট্রেনিং সেশন এবং কালকে (শনিবার) মৌসুমের শেষ ম্যাচ। এসব ম্যাচ খেলার জন্যই সে বাঁচে।’

ইউরোপিয়ান কাপ থেকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ নাম হবার পর কোন দলই শিরোপা ধরে রাখতে পারেনি গত মৌসুম পর্যন্ত। শুধুমাত্র গত মৌসুমেই রিয়াল টানা দ্বিতীয়বার এ শিরোপা জিতে অনন্য রেকর্ড গড়েছে। এবার আরেকটি অনন্য রেকর্ডের সামনে লস ব্লাংকোসরা। গত শতাব্দীর ৭০ এর দশকের পর কোন দলই চ্যাম্পিয়নস লিগ টানা তিনবার জিততে পারেনি।

এ রেকর্ডের সামনে থেকে জিদান বলেন, ‘এর পেছনে প্রতিভা অবশ্যই আছে। তবে পরিশ্রমটাই মুখ্য। ফাইনালে পৌঁছানো সহজ কথা নয়। আমি এসবের জন্যই বাঁচি। এটা আমার প্যাশন। আমি সবসময়ই এভাবেই প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছি। আর এর পেছনে রয়েছে খেলোয়াড়দের অক্লান্ত পরিশ্রম। দিনশেষে আপনি যখন রিয়াল মাদ্রিদে রয়েছেন এবং আপনি যদি পরিশ্রম করেন, তাহলে যে কোন কিছুই অর্জন করতে পারবেন।’

এরপর জিদানকে জিজ্ঞাসা করা হয় তার সাফল্য প্রশংসিত হচ্ছে কি না। তখন তিনি বলেন, ‘আমি মূল্যায়িত বোধ করি কি না? কখনো হ্যাঁ, কখনো না। এটাই জীবন। আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে, ভালো করে যাওয়া এবং আমার ভেতরে যা আছে তা দলকে দেয়া। তারপর ফলাফল যাই আসে আসুক। আত্মসন্তুষ্টিটাই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। অন্যদের চিন্তাভাবনা আমি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবো না এবং এটি আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণও নয়।’

ডিকেটি/আইএইচএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :