ঈদের পর জিমিদের ইনডোর অনুশীলন বিকেএসপিতে

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৯:২০ পিএম, ২৬ মে ২০১৯

বাংলাদেশ জাতীয় দলের সামনে নতুন চ্যালেঞ্জ ইনডোর হকি। প্রথমবারের মতো লাল-সবুজ জার্সিধারীরা অংশ নিতে যাচ্ছে এশিয়ান ইনডোর হকিতে। ১৫ থেকে ২২ জুলাই থাইল্যান্ডে হবে এশিয়ান ইনডোর। নতুন এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার প্রস্তুতি ইতিমধ্যেই শুরু করেছে বাংলাদেশ। স্থানীয় কোচ জহিদ হোসেন রাজুর অধীনে চলছে প্রশিক্ষণ। দ্রæতই দলের সঙ্গে যোগ দেবেন নতুন পোলিশ কোচ।

প্রতিযোগিতা ইনডোরে; কিন্তু বাংলাদেশ হকি দল অনুশীলন করছে মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামের টার্ফে। দলকে ভালোভাবে প্রস্তুত করতে চাই ইনডোরে অনুশীলন। তাই দলকে ঈদের পর বিকেএসপি পাঠিয়ে দেবে বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের। শনিবার ফেডারেশনের সিনিয়র সহসভাপতি আবদুর রশিদ শিকদারের নেতৃত্বে ফেডারেশনের একটি প্রতিনিধি দল বিকেএসপি পরির্দশন করে সেখানকার ইনডোর অনুশীলনের সুযোগ-সুবিধা দেখে এসেছেন।

জিমিসহ যে ৩৪ জন নিয়ে চলছে ইনডোরের অনুশীলন তাদের অনেকেরই রয়েছে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে খেলার অভিজ্ঞতা। কিন্তু সবার কাছেই ইনডোর নতুন বিষয়। খেলার নিয়ম তাদের শিখতে হচ্ছে নতুন করে। ফিল্ড হকির চেয়ে ইনডোর হকিতে টেকনিকটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ সব কিছুতে ধারনা নিয়েই জিমিদের অংশ নিতে হবে ইনডোর হকিতে।

মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামের টার্ফের মাঝে আলাদা মাঠ তৈরি করে জিমিদের অনুশীলন করাচ্ছেন কোচ রাজু। মাঠের চারপাশ ঘিরে দেয়া হয়েছে বোর্ড দিয়ে। এর মধ্যেই ইনডোর হকির অনুশীলন হবে। কিভাবে খেলতে হবে সেই নিয়মটা মুখস্থ করানোর মতো করে খেলানো হবে। কখন প্লেয়ার নামবে-উঠবে। কিভাবে আক্রমণে যাবে এসবের একটা নিয়ম আছে। সেটাই ধাতস্থ করানো। অনুশীলনের শুরুতে খেলার নিয়ম-কানুন ও ফিটনেস নিয়ে কাজ করছেন কোচ। মাঠ ছাট বলে এখানে ফিটনেসের বিষয়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

আরআই/আইএইচএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :