ধানে পোকার আক্রমণে লোকসানে কৃষকরা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ
প্রকাশিত: ১২:২২ পিএম, ৩০ এপ্রিল ২০১৯

নওগাঁয় শুরু হয়েছে ইরি-বোরো কাটা-মাড়াই। এ বছর আবহাওয়া অনুকূলে না থাকায় ধানে পোকার আক্রমণ দেখা দিয়েছে। এতে অর্ধেক ধান চিটায় পরিণত হয়েছে। ফলে কাঙ্ক্ষিত ফলন পাওয়া থেকে বঞ্চিত হবেন কৃষকরা। অপরদিকে কৃষি অফিস থেকে কোন পরামর্শ না পাওয়ার অভিযোগ করেছেন তারা। তাদের দাবি, লোকসান ঠেকাতে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান কিনতে হবে।

rice

নওগাঁ জেলার বিভিন্ন উপজেলায় শুরু হয়েছে ইরি-বোরো ধান কাটা-মাড়াই। ফসল ঘরে তুলতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। এ বছর ইবি-বোরো রোপণের সময় থেকে কয়েক দফা প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দেয়। গাছ থেকে ধান বের হওয়ার সময় শিলাবৃষ্টি হয়। এতে ধানের গাছ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এছাড়া দেখা দেয় পোকার আক্রমণ। কোনভাবেই পোকা দমন করা সম্ভব হচ্ছে না। এতে লোকসানের মুখে পড়ছে কৃষকরা।

সদর উপজেলার চকচাপাই গ্রামের কৃষক আব্দুস সাত্তার ও মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘প্রতিবিঘা জমিতে ধান উৎপাদনে প্রায় ১২-১৫ হাজার টাকা খরচ হয়। এ বছর প্রতিবিঘায় ফলন হয়েছে ১৫-১৭ মণ। যেখানে গত বছর উৎপাদন হয়েছিল ২৫-৩০ মণ। বর্তমানে বাজার দর ৬০০-৬৫০ টাকা। ফলে ধান উৎপাদনের খরচই উঠবে না।’

rice

শৈলগাছী গ্রামের কৃষক কৃষ্ণ ও চুনিয়াগাড়ী গ্রামের কৃষক হাসান মোল্লা বলেন, ‘পরামর্শ নেওয়ার জন্য কৃষি অফিসের কোন লোক খুঁজে পাওয়া যায় না। এ বছর আমাদের লোকসানে পড়তে হবে।’

rice

নওগাঁ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো. মাসুদুর রহমান বলেন, ‘ইতোমধ্যে প্রায় চার শতাংশ ধান কাটা-মাড়াই হয়ে গেছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রেহাই পেতে কৃষকদের দ্রুত ধান কেটে নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগে যে কোন সময় কৃষকদের বড় ধরনের ক্ষতি হতে পারে।’

আব্বাস আলী/এসইউ/জেআইএম