বোরো আবাদে ব্যস্ত কৃষকরা

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি শায়েস্তাগঞ্জ (হবিগঞ্জ)
প্রকাশিত: ০৮:১৮ এএম, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে একযোগে শুরু হয়েছে বোরে চাষের চারা রোপণ। তীব্র শীত উপেক্ষা করে বাড়ছে কৃষকদের কর্মব্যস্ততা। জমি তৈরি, হালচাষ, বোরো ধানের চারা বীজতলা থেকে উঠানো শেষে এবার চারা জমিতে রোপণের মতো কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন শায়েস্তাগঞ্জের কৃষকরা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে বোরো আবাদে তেমন সমস্যা হবে না বলে মনে করেন স্থানীয় কৃষকরা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, উপজেলার বেশিরভাগ ফসলি জমিতে কেউ কেউ ট্রাক্টর দিয়ে হাল চাষ করছেন। কেউ কেউ স্যালো মেশিন দিয়ে জমিতে পানি দিচ্ছেন, আবার কেউ বা ধানের চারা বীজতলা থেকে উঠাচ্ছেন। বেশকিছু জমিতে আবার অনেকে চারা রোপণ করেছেন।

কৃষক হান্নান মিয়া জানান, তিনি দুই একর জমিতে চারা রোপণ করেছেন। প্রতি একর জমিতে চারা রোপণের জন্য ১ হাজার ২০০ টাকা দিয়েছেন। নিজেই ধানের চারা বীজতলা থেকে উঠিয়েছেন।

jagonews24

আরেক কৃষক আব্দুল হেলিম মিয়া এক একর জমিতে চারা রোপণ করেছেন বীজতলা থেকে চারা উঠানোসহ তিনি শ্রমিকদের দিয়েছেন ১ হাজার ৬০০ টাকা। উপজেলার নুরপুর ইউনিয়নের কৃষক রঙ্গু মিয়া বলেন, আমরা পাঁচজন করে দলবদ্ধ হয়ে চারা রোপণ করি।

প্রতিদিন দুই থেকে আড়াই একর জমিতে চারা রোপণ করতে পারি, এতে আমাদের ৫০০-৬০০ টাকার মতো প্রতিদিন ইনকাম করতে পারি, আবার অনেক দিন কাজ থাকেও না। সর্বশেষ মৌসুমে ধানের দাম ভালো থাকায় কৃষকরা বেশ লাভের মুখ দেখেছেন, সেজন্য এবার বোরো ধানের চাষাবাদ বেশি হবে বলে ধারণা করা যাচ্ছে।

jagonews24

এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুকান্ত ধর বলেন এবার তুলনামূলকভাবে বেশি জমিতে বোরো ধান চাষ করা হয়েছে।

এ বছর শায়েস্তাগঞ্জে বোরো আবাদ লক্ষ্যমাত্রা ১৩৫০ হেক্টর। এখন পর্যন্ত ৯৫ ভাগ রোপণ করা হয়েছে।

এমএমএফ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]