মায়ের ইচ্ছা পূরণেই আজ ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ

ক্যাম্পাস প্রতিবেদক
ক্যাম্পাস প্রতিবেদক ক্যাম্পাস প্রতিবেদক ঢাকা কলেজ
প্রকাশিত: ০৬:৩৯ পিএম, ১০ মে ২০২০

পৃথিবীর সব থেকে সুমধুর শব্দ ‘মা’৷ ‘মা’ শব্দটা শুধু একটি অক্ষরের হলেও এতেই যেন রয়েছে পৃথিবীর সব ভালোবাসা, সুখ, শান্তি আর আবেগের সম্মিলন। পৃথিবীর সব আবেগ আর সম্পর্কের বন্ধন ছিন্ন করে সবাই দূরে গেলেও মায়ের স্নেহ, ভালোবাসা ছিন্ন হওয়ার নয়। ছিন্ন হয়ও না। আজ বিশ্ব মা দিবস। প্রতি বছর মে মাসের দ্বিতীয় রোববার এই দিবসটি পালন করা হয়।

মা দিবসের এই দিনে মায়ের স্মৃতিচারণায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব নেট দুনিয়ার মানুষ। মা দিবসের এই দিনে জাগো নিউজকে নিজের মাকে নিয়ে গল্প শুনিয়েছেন দেশের অন্যতম উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর নেহাল আহমেদ।

অধ্যক্ষ প্রফেসর নেহাল আহমেদ বলেন, ‘আমার সুযোগ ছিল অফিসে যাওয়া বা সরকারি অফিসের কর্মকর্তা হওয়ার। আমার মা দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতি করে আসছেন। বর্তমানে তিনি কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন উপজেলা চেয়ারম্যান। আমাদের এলাকার সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সাথে আমার মা জড়িত। অনেক স্কুল-কলেজ প্রতিষ্ঠাও করেছেন। আত্মীয়দের মধ্যে আমার ছোট মামা একটা কলেজের অধ্যক্ষ। তিনিও স্কুল-কলেজ প্রতিষ্ঠা করেছেন। আমাদের পরিবারের মধ্যে একটা শিক্ষাবান্ধব পরিবেশ সবসময়ই ছিল। যে কারণে আমার মায়ের প্রধান ইচ্ছাই ছিল যে আমি ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ হই। মায়ের ইচ্ছা পূরণেই আজ আমি ঢাকা কলেজের অধ্যক্ষ।’

অধ্যক্ষ বলেন, ‘উপজেলা চেয়ারম্যান হওয়ার সুবাদে আমার মা এলাকার অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিচালনায় দিকনির্দেশনা প্রদান করেন৷ রাজনৈতিক পরিবার হওয়ায় সাধারণ মানুষের সাথে যোগাযোগ সবসময় ছিল। পারিবারিক সেই শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে আমিও ছাত্র-শিক্ষকসহ প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট সকলকে নিয়েই ঢাকা কলেজকে এগিয়ে নিতে চাই।’

‘আমার মা দুবার বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ উপজেলা চেয়ারম্যান হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে’ জানিয়ে এই অধ্যক্ষ বলেন, আমার সব থেকে প্রিয় ব্যক্তি আমার মা। তাই মাকে সবসময়ই মিস করি। সব থেকে বেশি মিস করি এই কারণেই যে জনগণের সেবা করতে গিয়ে মা আজ আমাদের থেকে দূরে। আমি মনে করি প্রত্যেকটা মানুষের জীবনে বাবা-মা বিশেষ করে মায়ের ভূমিকা সব থেকে বড়।’

সন্তান যত বড়ই হোক না কেন মায়ের কাছে সে আজীবনই অবনত মস্তকে থাকে। মাকে শ্রদ্ধা জানানোর মধ্যে নিজের গৌরব বৃদ্ধি পায় জানিয়ে সাক্ষাৎকারে মা দিবসে সব মাকে শুভেচ্ছা জানান তিনি।

বিএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]