ঢাবির এসএম হলের বারান্দায় বড় ফাটল, মালামাল সরানোর নির্দেশ

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২৩ পিএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলের বারান্দায় অনেক আগে থেকেই ফাটল থাকলেও এবার ধীরে ধীরে সেটি বড় হয়ে বিপজ্জনক অবস্থায় দাঁড়িয়েছে। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে হলের দক্ষিণ ব্লকের দক্ষিণ ও পশ্চিম পাশের বারান্দা থেকে শিক্ষার্থীদের সবধরণের আসবাবপত্র সরানোর নির্দেশ দিয়েছে হল কর্তৃপক্ষ।

গত ২১ সেপ্টেম্বর হল অফিস থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাকালীন এ হলটিতে প্রতিষ্ঠার পর কোনো ধরনের অবকাঠামো সংস্কার না করায় দিনে দিনে ভেঙে পড়ার দিকে ঝুঁকে যাচ্ছে। বারান্দায় থাকা প্রায় দুইশত শিক্ষার্থীর আবাসন নিয়ে শঙ্কায় পড়েছেন শিক্ষার্থীরা।

হল প্রশাসনের দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের দক্ষিণ ব্লকের দক্ষিণ ও পশ্চিমের বারান্দায় ফাটল দেখা দিয়েছে। বারান্দায় কোনো প্রকার খাট বা বিছানা জাতীয় ভারি আসবাবপত্র রাখা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বারান্দায় কোনো ছাত্র অবস্থান করতে পারবে না। তাই আগামী ৭ অক্টোবরের মধ্যে বারান্দায় রাখা নিজ নিজ বিছানাপত্র ও খাট সরিয়ে নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট ছাত্রদের নির্দেশনা দেওয়া হলো।

আরও বলা হয়, এই সময়ের মধ্যে মালামাল সরিয়ে নেওয়া না হলে হল কর্তৃপক্ষ খাট বা বিছানাপত্র সরিয়ে ফেলবে। একইসঙ্গে বারান্দায় অবস্থানরত ছাত্রদের অনতিবিলম্বে হল অফিসে যোগাযোগ করে সিটের জন্য আবেদন করতে বলা হচ্ছে।

এ বিষয়ে সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের প্রাধ্যক্ষ মজিবুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, আমাদের হলের বারান্দায় ফাটল অনেক আগে থেকেই ছিলো। কিন্তু এটি দিনে দিনে বড় হচ্ছে। দুই তলার বারান্দাটা দেবে গেছে। এটা দেখার পর আমি উপাচার্যের কাছে চিঠি লিখেছি। তিনি বুয়েটের বিশেষজ্ঞ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং সেকশন দিয়ে একটি কমিটি করে দিয়েছে। তারা সরেজমিনে দেখে কয়েকবার মিটিং করেছে।

jagonews24

তাদের সুপারিশ অনুযায়ী বারান্দা থেকে সব কিছু সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কারণ বারান্দায় এতো লোড নেওয়ার মতো সক্ষমতা নেই।

মুজিবুর রহমান আরও বলেন, এই বারান্দায় যারা থাকে তাদের অনেকের সিট এরই মধ্যেই আমরা বরাদ্দ করে ফেলেছি। বাকিরাও যোগাযোগ করছে। আশা করছি, সবার সিট আমরা বরাদ্দ দিতে পারবো।

ফাটলের বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে জানিয়ে মুজিবুর রহমান বলেন, ফাটলের বিষয়ে এখনই আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। এটা দ্রুত সংস্কারের করা হবে।

এ বিষয়ে সলিমুল্লাহ মুসলিম হল সংসদের সহ-সভাপতি (ভিপি) এম.এম কামাল উদ্দিন জাগো নিউজকে বলেন, এখানে যেসব শিক্ষার্থী থাকতো তারা আবাসন নিয়ে শঙ্কায় পড়েছেন। আমরা চাই হল প্রশাসন সাবেক যেসব শিক্ষার্থীরা হলে থাকেন তাদের জায়গায় এসব শিক্ষার্থীদের তুলে দিতে হবে। সামনে নতুন শিক্ষার্থীদের জন্য বর্ধিত ভবন নির্মাণ করার দাবি জানাচ্ছি।

এমআরএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]