রাজাপুর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি বহিষ্কার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ০৩:০৬ পিএম, ১০ জুলাই ২০১৭ | আপডেট: ০৮:৫৬ এএম, ২৫ আগস্ট ২০১৭

ঝালকাঠির রাজাপুর ডিগ্রি কলেজে একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নবীনবরণ অনুষ্ঠানে এমপির সামনে ছাত্রলীগের দুই নেতার হাতাহাতির ঘটনায় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতিকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বহিষ্কৃত মাহমুদুল হাসান জেলার রাজাপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি।

সোমবার ঝালকাঠি জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফিক ও সাধারণ সম্পাদক এস.এম আল আমিন স্বাক্ষরিত এক পত্রে এ বহিষ্কারাদেশ দেয়া হয়।

এতে বলা হয়েছে, মাহমুদুল হাসানের বিরুদ্ধে সংগঠনের নিয়মবহির্ভূত, সংগঠনবিরোধী ও অসামাজিক কাজে জড়িত থাকার প্রমাণ রয়েছে। বিগত দিনেও মৌখিকভাবে তাকে কারণ দর্শানোর জন্য বলা হয়েছিল।

কিন্তু তিনি সংযত হননি। বিগত দিনে এবং বর্তমানে তার রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড বাংলাদেশে ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রবিরোধী। আর এ কারণে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশ মোতাবেক রাজাপুর উপজেলা ছাত্রলীগ সহসভাপতি মাহমুদুল হাসানকে বহিষ্কার করা হলো।

ঝালকাঠি জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফিক বলেন, মাহমুদুল হাসান দীর্ঘদিন ধরে নানা কর্মকাণ্ডে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে আসছিল। তাকে একাধিক বার সংযত হওয়ার জন্য মৌখিকভাবে আমি বলেছি। রোববার রাজাপুরে স্থানীয় এমপির সামনে হাতাহাতির ঘটনার খবরটি প্রকাশিত হলে বিষয়টি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির দৃষ্টিতে পড়ে। পরে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশ মোতাবেক জেলা ছাত্রলীগ জরুরি সিদ্ধান্ত নিয়ে মাহমুদুল হাসানকে রাজাপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়।

প্রসঙ্গত, রোববার সকাল ১০টায় ঝালকাঠির রাজপুর ডিগ্রি কলেজের নবীনবরণ অনুষ্ঠানে স্থানীয় সংসদ সদস্য বিএইচ হারুনের সঙ্গে হাটাকে কেন্দ্র করে তার সামনেই ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মাহমুদুল হাসান ও ছাত্রলীগ সদস্য রাজিব ফরাজীর মধ্যে এ হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় এমপি হারুনসহ উপস্থিত অতিথিরা হতবাক হয়ে পড়েন। পরে পুলিশ সংসদ সদস্য হারুনকে নিরাপদে সভামঞ্চে উঠিয়ে দেন।

মোঃ আতিকুর রহমান/এএম/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :