হেলিকপ্টারে চড়ে ভাইকে দেখতে গেলেন এমপি আউয়াল

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পিরোজপুর
প্রকাশিত: ০৩:৫৪ পিএম, ১৩ জুলাই ২০১৭

ছোট ভাইয়ের সঙ্গে প্রায় দেড় বছরের অভ্যন্তরীণ বিরোধ নিষ্পত্তি শেষে তাকে দেখতে হেলিকপ্টারে চড়ে পিরোজপুর স্টেডিয়াম মাঠে নামলেন সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএমএ আউয়াল। বৃহস্পতিবার বিকেলে স্টেডিয়াম মাঠে নামেন তিনি।

এ সময় দলীয় নেতাকর্মীরা বৃষ্টি উপেক্ষা করে বিভিন্ন স্লোগান এবং ফুল দিয়ে তাকে বরণ করেন। পরে সেখান থেকে এমপি আউয়াল বৃষ্টি উপেক্ষা করে নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে হেঁটে স্টেডিয়াম মাঠ থেকে সরাসরি পৌঁছেন স্থানীয় গোপালকৃষ্ণ টাউন ক্লাব মাঠে। 

এ সময় সদর রোডের দুই পাশে উৎসুক জনতা হাত নেড়ে তাকে অভিনন্দন জানায়। টাউন ক্লাব মাঠে আউয়াল নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে হাত নেড়ে বলেন, আপনাদের ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। কারণ সুবিধাবাদীরা কখনও কোনো কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। তারা কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে ভয় পায় এবং দলের আদর্শ তাদের পক্ষে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয় না। 

তিনি আরও বলেন, আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার আশীর্বাদ নিয়ে পিরোজপুরে উপস্থিত হয়েছি। প্রশাসনের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, প্রশাসনে যারা আছেন, প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী যারা আছেন তারা কোনো ব্যক্তিস্বার্থে ব্যবহৃত হবেন না। অনেক ত্যাগের ফলে পিরোজপুরকে মাদকমুক্ত করেছি। সেই পিরোজপুর এখন মাদকে সয়লাব হয়ে গেছে।

AWOWAL

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন এমপির ছোট ভাই উপজেলা চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান খালেক, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান ফুলু, স্বরূপকাঠি পৌরসভার মেয়র গোলাম কবির ও আওয়ামী লীগ নেতা আবু সালেহ বাবুল।

দলীয় সূত্র জানায়, ২০১৫ সালের ১১ ডিসেম্বর জেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হওয়ার কয়েক মাসের মধ্যেই আপন ভাইদের সঙ্গে অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েন একেএমএ আউয়াল।

পরে ওই দ্বন্দ্ব শেষ পর্যন্ত রাজনৈতিক কোন্দলে রূপ নেয়। এরই জের হিসেবে মেজো ভাই পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা মো. হাবিবুর রহমান মালেক, সেজ ভাই সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. মজিবুর রহমান মালেক এবং ছোট ভাই জেলা চেম্বারের সভাপতি মো. মশিউর রহমান মহারাজের সঙ্গে দূরত্ব সৃষ্টি হয় তার।

কিন্তু হঠাৎ করেই বুধবার রাত থেকে রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন ওঠে মজিবুর রহমান মালেক তার বড় ভাই এমপি আউয়ালের সঙ্গে সব ভেদাভেদ ভুলে মিলে গেছেন। শহরে বিষয়টি ‘টক অব দ্য টাউনে’ পরিণত হলেও অনেকের মনেই ব্যাপারটি খটকা লাগছিল। কিন্তু বৃহস্পতিবার দুপুরের পর থেকে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত হয়।

তবে আউয়ালের অন্য দুই ছোট ভাই হাবিবুর রহমান মালেক ও মশিউর রহমান মহারাজ বড় ভাইয়ের সঙ্গে রয়েছেন কি না তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বিকেলে হেলিকপ্টার স্টেডিয়ামে নামলে এমপি আউয়ালকে প্রথমেই তার সেজ ভাই মজিবুর রহমান ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানান। 

হাসান মামুন/এএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]