লক্ষ্মীপুরে ১৫ পরিবারের জমি দখলের অভিযোগ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ০৭:৪৬ এএম, ২২ ডিসেম্বর ২০১৭

লক্ষ্মীপুরে এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে প্রতারণার মাধ্যমে ১৫ অসহায় পরিবারের প্রায় ২০ একর জমি দখলে নিয়ে ভোগ করার অভিযোগ উঠেছে। প্রতিবাদ করতে গিয়ে হামলা-মামলা ও লুটপাটের শিকারসহ কারাভোগ করতে হয়েছে অনেককেই। এ নিয়ে চরম আতঙ্কে রয়েছে পরিবারগুলো।

শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে প্রভাবশালী জামাল উদ্দিন ও তার অনুসারীদের বিচার এবং জমি ফিরে পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগীরা। সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জের চরমনসা গ্রামের ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। পরে তারা বিক্ষোভ মিছিল করে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, উপজেলার পশ্চিম চরমনসা গ্রামের মৃত লুৎফর রহমানের ছেলে জামাল উদ্দিন প্রতারণার মাধ্যমে স্থানীয় ১৫ পরিবারের জমি দখলে নিয়েছেন। নানা কূট-কৌশলের মাধ্যমে নিজেই আদালতে মামলা করে নোটিশ গোপনের মাধ্যামে পক্ষে রায় করিয়ে এবং দলিল তৈরি করে গত ২০ বছর ধরে এসব জমি দখলে নিয়েছেন।

সেখানে আরো বলা হয়, জামাল ও তার পরিবারের সদস্যরা পশ্চিম চরমনসা গ্রামের বাদশা আলম, মনিরুজ্জামান, শামছুল ইসলাম, হারুুনুর রশিদ, নজির আহমেদ, কহিনুর বেগম, মফিজুল হক, ছায়েদুল হক, ওয়াহিদুজ্জামান বাবলু, খোরশেদ আলম, ফুলবানু ও হাফিজ উল্যাসহ ১৫ পরিবারের প্রায় ২০ একর ফসলি জমি দখলে নিয়েছেন।

ভূক্তভোগী মনিরুজ্জামান বলেন, ভূমিদস্যু জামাল ও তার সহযোগীরা ১৯৯০ সালে ২৫ এপ্রিল আমার বাবা সিরাজ মিয়াকে প্রকাশ্যে হত্যা করেছে। তখন তারা জোরপূর্বক আমাদের দেড় একর জমি দখল করে নেয়। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশের কাছে গিয়েও কোনো সুফল মিলছে না।

নজির আহমদ বলেন, আমাদের গ্রামের লোকজন অশিক্ষিত। আমরা জমির কাগজপত্র বুঝি না। জামাল ভুয়া দলিল তৈরি করে, আদালতে সাজানো মামলার মাধ্যমে আমাদের জমিগুলো দখল করে নিয়েছে। প্রতিবাদ করতে গিয়ে দুবার আমাকে ১৫ দিন কারাগারে থাকতে হয়েছে।

এ ব্যাপারে বক্তব্য জানতে অভিযুক্ত জামাল উদ্দিনের সঙ্গে শুক্রবার দুপুর একটার দিকে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। এসময় তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

কাজল কায়েস/এফএ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :