শেরপুরে চালকল শিল্পকে বিপর্যয় থেকে রক্ষার দাবি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি শেরপুরে
প্রকাশিত: ০৭:১৯ পিএম, ২৮ মার্চ ২০১৮

মৌসুমের শুরুতে ধানের মূল্য বেশি থাকায় চালের মূল্যও বৃদ্ধি পায় এই অবস্থায় আমদানিকৃত চালের ওপর থেকে সব ধরনের শুল্ক প্রত্যাহার করায় বাজার স্থিতিশীল হয়।

কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে ব্যাপক পরিমাণ বিদেশি চাল আমদানি করায় দেশীয় চাল কলগুলোতে উৎপাদিত চাল বিক্রি বন্ধের পথে। এতে করে অসম প্রতিযোগিতা ও ক্রমাগত লোকসানের ফলে দেশের অন্যতম বড় চালের মোকাম শেরপুর জেলার বেশিরভাগ চালকল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে-এমন দাবি জেলা চালকল মালিক সমিতির।

এ জন্য শেরপুর জেলা চালকল মালিক সমিতি বুধবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে চালকল শিল্পকে ভয়ংকর বিপর্যয় থেকে রক্ষার দাবি জানিয়েছে।

শহরের বটতলা এলাকায় জেলা চালকল মালিক সমিতি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন- সমিতির সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রৌশন।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, শুল্কমুক্ত আমদানিকৃত চালের কারণে অন্তহীন দুর্ভোগে আছি আমরা। চাল বিক্রি করে লোকসান গুনতে গুনতে দিশেহারা হয়ে পড়েছি। এসব সমস্যার মোকাবেলা করতে করতে জেলার বেশিরভাগ চালকল মালিকরা পুঁজিহারা হচ্ছেন প্রতিনিয়ত। অনেকে আবার হয়েছেন ঋণখেলাপি। ইতোমধ্যে লোকসানের ঘানি টানতে না পেরে বেশিরভাগ চালকল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে করে শুধুমাত্র চালকল মালিকগণই ক্ষতিগ্রস্ত হননি, বরং এই শিল্পের সঙ্গে জড়িত হাজার হাজার শ্রমিক কার্যত বেকার হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। এ জন্য আমরা আমদানিকৃত চালের ওপর প্রত্যাহারকৃত সকল শুল্ক পুনরায় আরোপ করে দেশীয় চালকল শিল্পকে বাঁচানোর দাবি জানাচ্ছি।

জেলা চালকল মালিক সমিতির সভাপতি আশরাফুল আলম তালুকদার সেলিমের সভাপতিত্বে শেরপুর পৌরসভার মেয়র ও মিলমালিক গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন, আলহাজ দুলাল মিয়া, শামীম হোসেনসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও জেলায় কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

হাকিম বাবুল/এএম/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :