মুখ বেঁধে তুলে নিয়ে মাদরাসাছাত্রীকে ধর্ষণ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নরসিংদী
প্রকাশিত: ০৮:৫০ পিএম, ৩০ মার্চ ২০১৮
প্রতীকী ছবি

নরসিংদীর মনোহরদীতে এক মাদরাসাছাত্রীকে মুখ বেঁধে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় অভিযুক্ত কামরুল ইসলামকে (২৫) আসামি করে ওই ছাত্রীর মা মনোহরদী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

আসামি কামরুল উপজেলার কৃষ্ণপুর এলাকার সুরুজ মিয়ার ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী স্থানীয় একটি মাদরাসা থেকে এ বছর দাখিল পরীক্ষা দিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে সে নিজ বাড়ি থেকে চাচার বাড়িতে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে কামরুল তার গতিরোধ করে মুখ বেঁধে পার্শ্ববর্তী দেওয়ান আলীর নির্জন পরিত্যক্ত বাড়ির একটি ঘরে নিয়ে যায় এবং হাত-পা বেঁধে তাকে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর তাকে ঘরের ভেতরে আটকে রেখে বাহির থেকে দরজা বন্ধ করে পালিয়ে যায় কামরুল। দীর্ঘক্ষণ চেষ্টার পর ওই ছাত্রী তার হাত ও মুখের বাঁধন খুলে চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

কৃষ্ণপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. এমদাদুল ইসলাম আকন্দ জানান, ঘটনা শোনার পরপরই মেয়েটির বাড়িতে গিয়ে পরিবারকে থানায় মামলার পরামর্শ দিয়েছেন।

মনোহরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফখরুদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, ছেলে-মেয়ে পরস্পরের পূর্বপরিচিত। তাদের মধ্যে সম্পর্ক ছিল। অভিযুক্ত কামরুল ইসলামকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সঞ্জিত সাহা/আরএআর/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :