সাব-রেজিস্ট্রারের দুর্নীতিতে কর্মবিরতিতে দলিল লেখকরা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৭:৫৯ পিএম, ০৮ এপ্রিল ২০১৮ | আপডেট: ০৮:০৩ পিএম, ০৮ এপ্রিল ২০১৮
সাব-রেজিস্ট্রারের দুর্নীতিতে কর্মবিরতিতে দলিল লেখকরা

সাব-রেজিস্ট্রারের অপসারণের দাবিতে সলঙ্গা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের দলিল লেখকগণের অনির্দিষ্টকালের কলম বিরতি চলছে। পাঁচদিন ধরে চলা এ কলম বিরতির কারণে দুর্ভোগে পড়েছে জমি ক্রেতা-বিক্রেতারা। এতে করে লাখ লাখ টাকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার।

মঙ্গলবার (৩ এপ্রিল) থেকে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে কলম বিরতি শুরু করেন দলিল লেখকরা। এ নিয়ে রোববার দুপুরে সলঙ্গা সিনিয়র মাদ্রাসা মোড়ে প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে তারা।

কলম বিরতির বিষয়ে দলিল লেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল জানান, সাব-রেজিস্ট্রির খালেদা সুলতানা যোগদানের পর থেকেই দলিল দাতা-গ্রহীতাসহ দলিল লেখকরাও তার দুর্নীতির শিকার হচ্ছে। দলিল সম্পাদনের শতভাগ বৈধ কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও অনৈতিক সুবিধা আদায়ের জন্য মনগড়া কাগজপত্র চেয়ে থাকেন। আর সপ্তাহের মাত্র তিনদিন তিনি অফিস করেন। অনৈতিক সুবিধা না পেলে তিনি দলিল লেখকদের গালিগালাজও করেন। এসব কারণে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি পালন করছে দলিল লেখকরা।

jagonews24

স্থানীয় সূত্র জানায়, সলঙ্গা থানার ৬টি ইউনিয়নের দেড় শতাধিক গ্রামের মানুষ জমি রেজিস্ট্রি করে এ অফিসের মাধ্যমে। কলম বিরতির কারণে প্রতিদিনই শত শত দলিল দাতা-গ্রহীতা রেজিস্ট্রি অফিসে এসে ফিরে যেতে হচ্ছে। দূর থেকে আসা দরিদ্র কৃষকরা তাদের জমি রেজিস্ট্রি করতে না পারায় চরমভাবে বিপাকে পড়েছে।

এদিকে রোববার সরেজমিনে দেখা যায়, সর্বদা ব্যস্ত সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসটি এখন জনশূন্যে পরিণত কার্যালয়ে হয়েছে। অফিসের কর্মচারী-কর্মকর্তারা বসে বসে অলস সময় পার করছেন। অপরদিকে প্রতিদিনই দলিল দাতা ও গ্রহীতারা সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে এসে ফিরে যাচ্ছেন।

জমি বিক্রেতা হায়দার হোসেন আইয়ুব আলী বলেন, প্রয়োজনের তাগিদেই আমাদেরকে জমি বিক্রি করতে হয়। অথচ দলিল সম্পাদন না হওয়ায় আমরা জমি বিক্রি করতে পারছি না। ফলে আমরা নানা সমস্যায় পড়ছি।

ইউসুফ দেওয়ান রাজু/ আরএ/আরআইপি