মানুষ দেখলেই বয়স কমে যায় এরশাদের

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি সুনামগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৯:৩৫ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
ফাইল ছবি

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ বলেছেন, আমি সারাজীবন মানুষের জন্য রাজনীতি করেছি। এখন আমার বয়স হয়েছে, কিন্তু মানুষ দেখলে আমার বয়স কমে যায়।

রোববার সুনামগঞ্জ পৌর শহরের সরকারি জুবিলি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত জেলা জাতীয় পার্টির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি বলেন, প্রখর রোদের মধ্যে আপনারা ছুটে এসেছেন। মিসবাহ বলেছিল, সম্মেলনে ৫০ হাজার লোক হবে। এখন দেখছি, মানুষ আরও বেশি হয়েছে। আমি নিজের জন্য কিছু চাই না। মানুষের মুক্তি চাই, মানুষের অধিকার চাই।’

তিনি বলেন, এ দেশের সমাজব্যবস্থা পুরোপুরি ভেঙে পড়েছে। প্রতিদিন কত মানুষ মারা যায়, খুন হয়, গুম হয়, তার হিসাব নেই। জীবনের নিশ্চয়তা নেই। ক্ষমতার পালাবদল হয়, কিন্তু মানুষের ভাগ্যের কোনো পরিবর্তন হয় না। ক্ষমতার পালাবদল নয়, মানুষ পরিবর্তন চায়। মানুষ শান্তি চায়, জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় দেখতে চায়।

এ সময় এরশাদ বলেন, সুনামগঞ্জ সদর আসনে আপনাদের মিসবাহকে প্রার্থী ঘোষণা করে দিয়ে গেলাম। তাকে বিজয়ী করবেন। ২০০১ সালের নির্বাচনে জাতীয় পার্টি সিলেট বিভাগ থেকে আটটি আসনে জয়লাভ করেছিল। এবার আরও বেশি আসনে জয়লাভ করতে হবে।

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে বিচার বিভাগ স্বাধীন হবে, দলীয়করণ হবে না, দেশে গুম-খুন থাকবে না। দেশের মানষ শান্তিতে থাকবে।

সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক পীর ফজলুর রহমান মিসবাহর সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, যুগ্ম মহাসচিব সিলেট-২ আসনের সংসদ সদস্য ইয়াহহিয়া চৌধুরী এহিয়াসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার বলেন, জাতীয় পার্টি যখন ক্ষমতায় ছিল, নানা সমালোচনা হয়েছে জাতীয় পার্টির বিরুদ্ধে। কিন্তু কাউকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়নি। দেশে অন্যায় অবিচার চলবে, কিন্তু প্রতিবাদ করা যাবে না; প্রতিবাদ করলেই মামলার ভয় দেখানো হয়।

সভাপতির বক্তব্যে পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেন, গত পাঁচ বছর সংসদ সদস্য হিসেবে আপনাদের সেবা করেছি, আপনাদের হাতে হাত রেখে চলেছি। যেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম তা সাধ্যমতো বাস্তবায়ন করেছি। আবার বিজয়ী হলে সুনামগঞ্জের চেহারা পাল্টে দেব।

এফএ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :