কক্সবাজারে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২, আহত ২৬

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ০৮:০২ পিএম, ১৯ এপ্রিল ২০১৯
প্রতীকী ছবি

কক্সবাজার সদর ও টেকনাফে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দুই জন নিহত ও ২৬ জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার দুপুর ১টায় টেকনাফ ও ২টায় সদর উপজেলায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে দু'জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে টেকনাফে যাত্রীবাহী ম্যাজিক মিনিবাসের সঙ্গে সংঘর্ষে মোটর সাইকেল আরোহী দুই জন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হন আরও অন্তত ১১ জন। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত তিনজনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার বেলা ১টার দিকে টেকনাফের হ্নীলা আলীখালী-রঙ্গিখালীর মাঝামাঝি সৌরবিদ্যুৎ প্যানেল সংলগ্ন কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউপির ঝিমংখালী এলাকার আবু শমার ছেলে হাজী গুরা মিয়া (৪০) ও বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আবুল হকের ছেলে মো. আয়াছ (১৫)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বালুখালীগামী একটি যাত্রীবাহী ম্যাজিক গাড়ির সঙ্গে টেকনাফগামী মোটর সাইকেলের মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। আশপাশের লোকজন দ্রুত এসে ঘটনাস্থল থেকে আহতের উদ্ধার করে লেদা আইএমও হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক হাজী গুরা মিয়া ও মো. আয়াছ নামে দুই জনকে মৃত ঘোষণা করেন।

আহত বাকিরা হলেন- উনচিপ্রাং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ডি ব্লকের ২০৫৮ নম্বর রুমের মোহাম্মদ হোছাইনের ছেলে সুলতান আমিন (৩৮), সুলতান আমিনের ছেলে মো. সলিম (১৩), থাইংখালী হাকিম পাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ৬নং ব্লকের ৫০৯ রুমের আমির হোসাইনের ছেলে আয়াতুল্লাহ (৩৫), কুতুপালং লম্বা শিয়া ক্যাম্পের কবির আহমদের ছেলে নবী হোসাইন (১৪), জি/৩ ব্লকের মৃত অলি আমজাদের ছেলে জমির হোসাইন (৩২), পালাংখালী সবিউল্লাহ হাড়া ক্যাম্পের ডি/৩ ব্লকের ১৪০ রুমের লালুর ছেলে আব্দুল আমিন (২২), জামতলি রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আহমদ হোসেনের ছেলে আবাদ উল্লাহ (২৫), সি/৭ ব্লকের ছৈয়দ নুরের ছেলে এনায়েত হোসাইন (১৯), বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এফ ব্লকের ১১৬৬২৪ নম্বর রুমের আনু মিয়ার ছেলে নজুম উল্লাহ (১৩), এফ ব্লকের আব্দুল হামিদের ছেলে মো. জুবাইরসহ (২০) মোট ১১ জন গুরুতর আহত হয়। তাদের মধ্যে আশংকাজন হওয়ায় ২ জনকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

খবর পেয়ে নয়াপাড়া ফাঁড়ির এসআই শরীফুলের নেতৃত্বে পুলিশ নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর এবং দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি দু’টি জব্দ করে।

অপরদিকে বেলা ২টার দিকে কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বাংলা বাজার এলাকায় যাত্রীবাহি সী-লাইন মিনিবাস উল্টে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় দু’জনকে চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান বাসযাত্রী স্কুলশিক্ষক নজরুল ইসলাম। বাকিদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে, আহতদের নাম জানাতে পারেননি তিনি।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক শাহীন আবদুর রহমান জানান, পৃথক দুটি দুর্ঘটনায় আহতদের সদর হাসপাতালে আনা হয়েছে। এদের মাঝে দু’জনকে চমেকে রেফার করা হয়েছে। এ মূহূর্তে তাদের নাম মনে নেই।

সায়ীদ আলমগীর/এমএমজেড/এমকেএইচ