অপরাধ করলে বুকের পাটা ছিঁড়ে ফেলব : শামীম ওসমান

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ১০:১৪ পিএম, ২০ এপ্রিল ২০১৯

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান বলেছেন, কেউ বাহির থেকে রূপায়ন টাউনে এসে মাস্তানি করবে তা কখনও হতে দেয়া হবে না। আমার নাম বিক্রি করে রূপায়ন টাউনে কেউ প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা করলে কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

শনিবার নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ভূইগড়ে অবস্থিত রূপায়ন টাউনে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন বাহিনীর তাণ্ডবে বিক্ষুব্ধ ফ্লাট মালিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এমন কথা বলেন তিনি।

রূপায়ন টাউনে নাজিম উদ্দিন বাহিনীর তাণ্ডবের কারণে বিক্ষুব্ধ প্রায় নয়শ’ ফ্ল্যাট মালিকের সঙ্গে আলাপ করতে এদিন শামীম ওসমান সেখানে স্ব-শরীরে যান।

ফ্লাট মালিকদের উদ্দেশ্য করে শামীম ওসমান বলেন, ‘রূপায়ন টাউনে আমার মেয়েরা থাকবে, হাঁটবে। এখানে মুরুব্বিরা থাকবেন, কোনো বেয়াদব থাকবে না। যদি এই বাসিন্দাদের মধ্যে খারাপ কেউ থাকে, তার নাম শেষ কইরা দিমু, তারে শুদ্ধা নাই করা দিমু আমি, যদি আপনারা চান। আপনারা না চাইলে আমার কিছু করার নাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি আমার কাজ করতেছি, এটা আমার ডিউটি। আপনারদের কাছে আমার অভিযোগ, আপনারা আপনাদের ডিউটি পালন করেন নাই। আপনারা কিন্তু বস্তিতে থাকেন না। সবাই মধ্যবিত্ত, উচ্চ মধ্যবিত্ত ঘরের বাসিন্দা। এখানে ম্যাক্সিমাম লোক শিক্ষিত। একটা লোকের দায়িত্ব হলো না যে, শামীম ওসমানকে একবার বলি। এলাকায় এই সমস্যাগুলো হচ্ছে, একবার জানিয়ে দেখি তো, লোকটারে টেস্ট করি। টেস্ট করতেন, টেস্টও করবেন না? না কাঁদলে মাও দুধ দেয় না।’

রূপায়ন টাউনের বাসিন্দাদের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেন, ‘আশপাশের এলাকার ঝামেলাও চুপ করে আমাকে জানাবেন। টেস্ট করে দেখেন। যদি না হয় তখন বলবেন। এর বিনিময়ে কিছু চাই না। আমি এটুকু চাই আমার মৃত্যুর পরে যেন আপনার চোখে আমার জন্য পানি আসে। এটাই আমার চাওয়া। আমি আল্লাহ ছাড়া কাউকে ভয় পাই না।’

নারায়ণগঞ্জে অনেক খেলা হচ্ছে মন্তব্য করে শামীম ওসমান বলেন, ‘প্রত্যেকটা খেলার জবাব আমার কাছে আছে। হাতের মুঠে ডকুমেন্ট আছে। আমি ছাড়ি না। কারণ আমি সম্মানিত লোকের সম্মান নষ্ট করি না, চেষ্টা করি ধৈর্য ধারণ করার।’

স্থানীয়দের আশ্বস্ত করে তিনি বলেন, আমি পরিষ্কার ভাষায় বলে দিতে চাই যারা (রূপায়ন টাউন) এইখানে বাইরের দু’চারজন লোক আছেন, আল্লাহর নামে কসম খেয়ে বলছি, এই তল্লাটে এসে যদি কেউ এমন কোনো কর্মকাণ্ড করে, যার কারণে আমার মেয়েরা ভয় পায়, কোনো মুরুব্বি ভয় পায়, আমি তাকে ছাড়ব না।

তিনি আরও বলেন, পরিবেশ সুন্দর করতে হলে আমরা একাটা সার্পোট দরকার। কার সাপোর্ট? আপনাদের সাপোর্ট। একটা কমিটি দাঁড় করান, আমি চ্যালেঞ্জ দিয়ে বলছি, এই কমিটির কথার বাইরে কোনো বাপের বেটার সাহস হবে না কথা বলার।

নাজিম উদ্দিনকে সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে সাঁটানো ফেস্টুন-ব্যানার দেখিয়ে শামীম ওসমান বলেন, এই পোস্টার ফোস্টার সব নামাইয়া ফেলেন, এগুলোর দরকার নেই, এগুলো কোনো কাজে লাগবে না। অনেকেই আছে আমাদের নাম ভাঙাইয়া অনেক কিছু করে ফেলে আমরা জানিও না। তিন পুরুষ ধরে আমরা নারায়ণগঞ্জে কাজ করছি। কোনো অন্যায়ের কাছে মাথা নত করব না। সে সরকার, প্রশাসন, পুলিশ যেই হোক। আমি ন্যায্য কথা বলতে এসেছি, বলব।

প্রসঙ্গত বৃহস্পতিবার (১৯ এপ্রিল) সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা কৃষক লীগ সভাপতি নাজিম উদ্দিন ও তার বাহিনী রূপায়ন টাউনের বেশ কয়েকটি ফ্ল্যাটে হামলা ও বাসিন্দাদের মারপিট করে। এতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ক্যাডার অফিসার আব্দুস সালামসহ ৫ জন আহত হন। এ ঘটনায় শুক্রবার কয়েক শত ফ্ল্যাট মালিক নাজিম উদ্দিনকে সন্ত্রাসী আখ্যা দিয়ে তার বাহিনীর হাত থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে মানববন্ধন করেন।

এছাড়াও এ ঘটনায় ভুক্তভোগী আবু সাঈদ পাটোয়ারী ও আশরাফ সিদ্দিকী বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় পৃথক দুটি মামলা করেন। মামলায় ভাইস চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন ও তার বাহিনীর ৭০ জনকে অভিযুক্ত করা হয়।

মো. শাহাদাত হোসেন/এমএমজেড/এমএস