পদ্মার পানিতে গেল কৃষকের স্বপ্ন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ১০:০১ পিএম, ১২ মে ২০১৯

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলা পদ্মা নদীতে গত তিন দিনে আকস্মিক জোয়ারের পানি বৃদ্ধির ফলে চরাঞ্চলের আবাদি পাকা আউশ ধান ও বাদামের ফসল ডুবে গেছে। এতে উপজেলার চারটি ইউনিয়নের পদ্মা পারের অন্তত ৫০০ একর জমির ধান ও বাদাম বিনষ্ট হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার চরঝাউকান্দা ইউনিয়নে পদ্মা চরের ১৫ নং চরকল্যানপুর মৌজা, দিয়ারা গোপালপুর মৌজা ও চর মির্জাপুর মৌজার প্রায় একশ একর জমির ফসল, চরহরিরামপুর ইউনিয়নে পদ্মা পারের ইন্তাজ মোল্যার ডাঙ্গী গ্রাম, আরজখার ডাঙ্গী ও চর শালেপুর মৌজার প্রায় দুইশ একর জমির ফসল, গাজীরটেক ইউনিয়নের মাঝি ডাঙ্গী, বিন্দু ডাঙ্গী, বঙ্গেশ্বর ডাঙ্গী, জয়দেব সরকার ডাঙ্গী গ্রাম, চরহোসেনপুর মৌজা ও হাজীগঞ্জ মৌজার প্রায় দেড়শ একর জমির পাকা-আধাপাকা ধান ও বাদাম ফসল পানিতে ডুবে গেছে।

এছাড়া চরভদ্রাসন সদর ইউনিয়নের পদ্মা পাড়ের বালিয়াডাঙ্গী গ্রাম, ফাজেলখার ডাঙ্গী, এমপি ডাঙ্গী, আ. গফুর মৃধা ডাঙ্গী, কামার ডাঙ্গী ও মাথাভাঙ্গা গ্রামের আরও একশ একর জমির পাকা ফসলি ধান পানিতে প্লাবিত হয়েছে।

চরঝাউকান্দা ইউপি চেয়ারম্যান ফরহাদ হোসেন মৃধা জানান, গত তিন দিনে পদ্মা নদীর পানি আকস্মিক বৃদ্ধি পেয়ে চরের নিম্নাঞ্চলের ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। উপজেলা চরাঞ্চলের বেশিরভাগ কৃষকের একমাত্র অবলম্বন চলতি মৌসুমের ধান আর বাদাম ফসল। এভাবে পদ্মার পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে কৃষকদের সর্বনাশ।

উপজেলার চরহরিরামপুর ইউনিয়নের ইন্তাজ মোল্যার ডাঙ্গী গ্রামের কৃষক লুৎফর রহমান জানান, আকস্মিক পানি বৃদ্ধি পেয়ে পদ্মা পারের শত শত একর জমির পাকা ও আধাপাকা ধানসহ বাদাম ফসল ডুবে রয়েছে। প্রচণ্ড খড়োতাপ আবহাওয়া থাকা সত্ত্বেও কৃষকরা পানির মধ্য থেকে কিছু ফসল তোলার চেষ্টা করছেন।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা জাহাঙ্গির হোসেন জানান, পদ্মায় হঠাৎ করে পানি বৃদ্ধি হওয়ায় উপজেলার পদ্মা পারের ফসলি জমি প্লাবিত হয়েছে। ফসলি মাঠের ক্ষতির পরিমাণ নির্নয় করতে জরিপের কাজ চলছে।

বি কে সিকদার সজল/এএম/পিআর