প্রথম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ করল অষ্টম শ্রেণির ছাত্র

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি হবিগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৫:০৪ পিএম, ২৫ মে ২০১৯

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলায় প্রথম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে অষ্টম শ্রেণিপড়ুয়া এক কিশোর। ঘটনার পর কিশোরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার বিদ্যুৎ বর্মা (১৫) উপজেলার উমরপুর গ্রামের বিনোদ বর্মার ছেলে।

শুক্রবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বর্মাকে কারাগারে পাঠানো হয়। বিদ্যুৎ বর্মা একই উপজেলার কাদিরগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র।

পাশাপাশি ধর্ষণের শিকার শিশুকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শুক্রবার রাতে সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে বানিয়াচং থানায় মামলা করেছেন।

পুলিশ ও ধর্ষণের শিকার শিশুর পরিবার জানায়, মঙ্গলবার বিকেলে ওই শিশুকন্যা বাড়ির উঠানে খেলা করছিল। এ সময় কৌশলে প্রতিবেশী বিদ্যুৎ বর্মা তাকে একটি কক্ষে ডেকে নেয়। সেখানে শিশুটিকে ধর্ষণ করে বিদ্যুৎ। একপর্যায়ে শিশু চিৎকার শুরু করলে পরিবারের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে। প্রথমে বিষয়টি পারিবারিকভাবে সমাধানের চেষ্টা করা হয়। বৃহস্পতিবার বিকেলে মারকুলি নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মনির ধর্ষক বিদ্যুৎকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

জিজ্ঞাসাবাদে শিশুটিকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে বিদ্যুৎ বর্মা। শুক্রবার বিকেলে ধর্ষক ও ধর্ষণের শিকার শিশুকে হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। আদালতে দাঁড়িয়ে বিচারকের সামনে শিশুটিকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেয় বিদ্যুৎ বর্মা। পরে ধর্ষককে কারাগারে এবং শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তির আদেশ দেন আদালত।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বানিয়াচং থানা পুলিশের এসআই মনির বলেন, শিশুটিকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে বিদ্যুৎ বর্মা। পরে ধর্ষককে কারাগারে এবং শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তির আদেশ দেন আদালত। আদালতের নির্দেশ মতো হাসপাতালে ভর্তি আছে শিশুটি। শনিবার শিশুটির ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

সৈয়দ এখলাছুর রহমান খোকন/এএএম/এমকেএইচ