ঝগড়া থেকে হত্যাকাণ্ড, প্রবাসীর স্ত্রী ও মেয়ে আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৫:২৯ পিএম, ১৬ আগস্ট ২০১৯

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার গোবর্দ্ধন গ্রামে আকাশ সরদার (১৬) নামের এক কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত আকাশের স্বজনদের অভিযোগ অনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করায় প্রবাসীর স্ত্রী তাসলিমা বেগম ভাড়াটে খুনি দিয়ে আকাশকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একই গ্রামের মালয়েশিয়া প্রবাসীর স্ত্রী তাসলিমা বেগম ও তার কিশোরী মেয়ে সীমাকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার সকালে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য অ্যাম্বুলেন্সে তোলা হলে আকাশের মৃত্যু ঘটে।

নিহত আকাশ গৌরনদীর বানিয়াশুরী গ্রামের মানিক সরদারের ছেলে। আকাশ গৌরনদী উপজেলার গোবর্ন্ধন গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য শামছুল হক খানের বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে ভাড়া থাকতো।

একই বাড়িতে পাশের ঘরে যশোর সদর উপজেলার মালয়েশিয়া প্রবাসী আব্দুর রহিম হাওলাদারের স্ত্রী তাসলিমা বেগম একমাত্র মেয়ে গৌরনদীর ধানডোবা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী সীমাকে (১৪) নিয়ে ভাড়া থাকতেন।

নিহত আকাশের মা নাসিমা আক্তার অভিযোগ করেন, গত ১১ আগস্ট প্রবাসী আব্দুর রহিমের স্ত্রী তাসলিমা বেগম মেয়ে সীমাকে বাসায় রেখে বাইরে যান। এ সময় ওই ঘরে তাসলিমার এক ভাতিজা প্রবেশ করে কয়েক ঘণ্টা সিমার সঙ্গে সময় কাটায়। পরবর্তীতে এ নিয়ে তার (নাসিমার) সঙ্গে তাসলিমার কথা কাটাকাটি ও এক পর্যায়ে ঝগড়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় তাসলিমা তাকে ও তার ছেলে আকাশকে দেখে নেয়ার হুমকি দেন।

নিহত আকাশের বাবা মানিক সরদার জানান, গত বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে ছেলে আকাশ মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় বাড়িতে ফিরে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। এ সময় তারা আকাশকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি ঘটলে রাত ৪টায় তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা শেষ রাতের দিকে আকাশকে ঢাকায় নিয়ে যেতে বলেন। সকালে অ্যাম্বুলেন্সে তোলার সময় আকাশের মৃত্যু হয়। স্বজনরা মৃতদেহ নিয়ে বাড়িতে পৌঁছলে খবর পেয়ে পুলিশ শুক্রবার দুপুরে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বরিশাল মর্গে পাঠায়।

নিহতের মা নাসিমা আক্তার অভিযোগ করেন, মেয়ের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করায় প্রবাসীর স্ত্রী তাসলিমা বেগম ভাড়াটে খুনি দিয়ে আমার ছেলে আকাশকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।

গৌরনদী মডেল থানা পুলিশের ওসি গোলাম ছরোয়ার বলেন, আকাশের মাথার পেছন দিকে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে ভারি কিছু দিয়ে আঘাত করে আকাশকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের প্রতিবেশী তাসলিমা বেগম ও তার মেয়ে সীমাকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। আকাশের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে।

সাইফ আমীন/এমএএস/এমকেএইচ