পদ্মায় বড়শিতে উঠলো কৃষকের লাশ

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি ঈশ্বরদী (পাবনা)
প্রকাশিত: ০৮:৪১ এএম, ১৭ অক্টোবর ২০১৯
ফাইল ছবি

পদ্মা নদীতে নৌকা ডুবে নিখোঁজের দুই ঘণ্টা পর নাসিম মল্লিক (২৫) নামে এক কৃষকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার লক্ষ্মীকুণ্ডা ইউনিয়নের পদ্মা নদী থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেন স্থানীয়রা। এর আগে বিকেলে লক্ষ্মীকুণ্ডা ইউনিয়নের মোল্লার ঘাটে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত নাসিম উপজেলার সাহাপুর ইউনিয়নের বাবুলচারা গ্রামের আইনুল মল্লিকের ছেলে।

নিহত নাসিমের পরিবারের বরাত দিয়ে সাহাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মতলেবুর রহমান মিনহাজ ফকীর জানান, এই এলাকা থেকে ৩০/৩৫ জনের একটি দল পদ্মা নদীর ওপারে পেঁয়াজ লাগাতে যান। ফেরার পথে অতিরিক্ত ভারে পাড়ের কাছে নৌকাটি উল্টে যায়। এ সময় সবাই সাঁতরে ওপরে উঠলেও নাসিম পানিতে তলিয়ে যান। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের খবর দেয়ার পরও কোনো ডুবুরি না থাকায় তাদের আসতে বিলম্ব দেখে স্থানীয়রা নদীতে জাল ও বড়শি ফেলে উদ্ধার চেষ্টা চালান। অবশেষে সন্ধ্যার পরে বড়শিতে
নাসিমের মরদেহ উঠে আসে।

ঈশ্বরদী ইপিজেড ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন অফিসার সাহেব আলী জানান, খবর পেয়ে ঈশ্বরদী ইপিজেড ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ডুবুরির জন্য অপেক্ষা করছিল। রাজশাহী থেকে ডুবুরি আসার আগেই এলাকাবাসী নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে।

তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ঈশ্বরদী একটি গুরুত্বপূর্ণ উপজেলা হওয়া সত্ত্বেও এখানে কোনো ডুবুরি নেই। পাবনা জেলায় এই পদে কাউকে নিয়োগ দেয়া হয়নি। রাজশাহী থেকে ডুবুরি আসতে ২/৩ ঘণ্টা লেগে যায়। এখানে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ডুবুরি থাকলে হয়ত ডুবে যাওয়া ব্যক্তিকে তাৎক্ষণিকভাবে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হতো।

ঈশ্বরদী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে পাকশী নৌপুলিশ ফাঁড়ির সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করে। নৌপুলিশের অনুমতিক্রমে নাসিমের মরদেহ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

আলাউদ্দিন আহমেদ/আরএআর/পিআর