মাঝ পদ্মায় ১২ ঘণ্টা আটকা ছিল ৬ ফেরি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মাদারীপুর ও রাজবাড়ী
প্রকাশিত: ১২:০৫ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২০

ঘন কুয়াশায় মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া ও রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে ফেরিসহ নৌযান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। প্রায় প্রতিদিনই ভোররাতে পদ্মা নদীতে কুয়াশার ঘনত্ব বেড়ে যাওয়ায় দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হচ্ছে। এতে তীব্র শীতে আটকে থেকে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে যাত্রী ও চালকদের।

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) প্রায় ১২ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর সকাল ১০টার দিকে কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরিসহ লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল স্বাভাবিক হয়। এর আগে ঘন কুয়াশার কারণে মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৯টা থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। পরে বুধবার ভোর থেকে লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

কাঁঠালবাড়ী ঘাট সূত্র জানায়, গত রাত ৯টার দিকে কুয়াশার তীব্রতার কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। এ সময় মাঝ পদ্মায় ছয়টি ফেরি নোঙর করে রাখা হয়েছিল। কুয়াশা কমে গেলে সকাল ১০টার দিকে ফেরিগুলো গন্তব্যে পৌঁছায়।

বিআইডব্লিউটিসির কাঁঠালবাড়ী ঘাটের ব্যবস্থাপক আব্দুল আলিম জানান, কুয়াশা কেটে যাওয়ায় সকাল ১০টা থেকে ফেরিসহ নৌযান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।

অপরদিকে ঘন কুয়াশার কারণে দীর্ঘ চার ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুট দিয়ে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। বুধবার (১৫ জানুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে পদ্মায় কুয়াশার ঘনত্ব কমে গেলে পুনরায় ফেরি চলাচল শুরু হয়।

দীর্ঘ সময় ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় নদী পারের অপেক্ষায় দৌলতদিয়া প্রান্তে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে। এ সময় তীব্র শীতে ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রী ও চালকরা। এর আগে ভোর ৬টার দিকে পদ্মায় কুয়াশার ঘনত্ব বেড়ে গেলে নৌ দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় ঘাট কর্তৃপক্ষ।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. আবু আব্দুল্লাহ রনি জানান, কুয়াশার ঘনত্ব কমে যাওয়ায় সকাল ১০টার দিকে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। স্বাভাবিকভাবে ফেরি চলাচল করলে পারের অপেক্ষায় থাকা যানবাহনের চাপ দ্রুত কমে যাবে। বর্তমানে এ রুটে ছোট-বড় ১৬টি ফেরি চলাচল করছে।

নাসিরুল হক/রুবেলুর রহমান/আরএআর/এমএস