শিমুলিয়া ঘাটের চাপ সামলাতে নেমে পড়লেন ডিসি-এসপি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মুন্সীগঞ্জ
প্রকাশিত: ০২:২১ এএম, ২৬ মার্চ ২০২০

করোনাভাইরাস আতঙ্কে যেখানে জনজীবন বিপর্যস্ত, সেখানে সরকারি সাধারণ ছুটি পেয়ে জনসাধারণের ঢল থামাতে সড়কে নামতে হয়েছে মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে।

বুধবার দুপুরে রাজধানী থেকে আসা দক্ষিণবঙ্গের যাত্রীতের চাপ সামলাতে মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েতে ব্যারিকেড দেয়া হয়।

গণপরিবহন চলাচল সীমিত রাখার সরকারি কর্মসূচির অংশ হিসেবে স্থানীয় প্রশাসন শ্রীনগর উপজেলার ছনবাড়ি এলাকায় ফ্লাইওভারের মুখে এ ব্যারিকেড তৈরি করে। এ সময় দক্ষিণাঞ্চলগামী যাত্রীদের বহনকারী যানবাহনগুলো ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ে থেকে ঘুরিয়ে দেয়া হয়। পাশাপাশি মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকারের ক্ষেত্রের একই ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়।

মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার ও পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন উপস্থিত থেকে এ ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।

জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার জানান, গতকাল থেকে শিমুলিয়া ঘাটে যে অতিরিক্ত যাত্রী চাপ ছিল যা জনস্বাস্থ্যের জন্যও রিক্সি। তাই আজ আমি ও পুলিশ সুপার মহোদয় ঘাট এলাকা পরিদর্শন এবং ঘাটের অতিরিক্ত ভিড় সামাল দিতে ও যানবাহন পারাপারের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করি। ঢাকা ও স্থানীয় ট্রাফিকদের সঙ্গে নিয়ে কিছুটা নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করি। মাওয়াগামী যাত্রী সাধারণদের বুঝাতে সক্ষম হলে তারা ঢাকা ফিরে যান। অনেকেই আবার এভাবেই চলে যায়। এরফলে ঘাটে যাত্রী চাপ কিছুটা কমতে থাকে এবং বিকেল ৫টার পর আবার যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করা হয়।

তিনি আরও বলেন, আমরা (সরকারের পক্ষ থেকে) চাচ্ছি যে জনসাধারণ ঘরে থাকুক। কিন্তু অলরেডি তারা রাস্তায় বের হয়ে গেছে। তাই তাদের নির্বিঘ্নে বাড়ি ফেরার জন্য এই ব্যবস্থা। এখন ঘাটের অবস্থা অনেকটাই স্বাভাবিক। গতকাল যেই প্যানিকটা ছিল, আজ তা আর নেই।

এসময় উপস্থিত ছিলেন শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসাম্মৎ রহিমা আক্তার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নিগার সুলতানা, শ্রীনগর থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ হেদায়াতুল ইসলাম ভূঞা ও ওসি (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন।

ভবতোষ চৌধুরী নুপুর/এমএএস/বিএ