মেহগনি বাগানে এনজিও কর্মকর্তার লাশ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি চুয়াডাঙ্গা
প্রকাশিত: ০২:৩১ পিএম, ২৫ মে ২০২০

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার মুন্সীপুর সীমান্ত এলাকা থেকে সাইফুল ইসলাম (৪০) নামে এক এনজিও কর্মকর্তার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (২৫ মে) সকালে বাংলাদেশ সীমান্তের দুইশ গজ অভ্যন্তরে মুন্সীপুর এলাকার একটি মেহগনি বাগান থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। তার গলায় দাগ ও কানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত সাইফুল ইসলাম দামুড়হুদা উপজেলার পীরপুরকুল্লা গ্রামের নতুনপাড়ার আবদার আলির ছেলে। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় ব্রাকে কর্মরত ছিলেন।

পরিবারের বরাত দিয়ে দামুড়হুদা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল খালেক বলেন, রোববার (২৪ মে) সকালে সাইফুল ইসলাম মাংস কেনার জন্য পীরপুরকুল্লা বাজারে যান। এ সময় একই গ্রামের নাজমুল হাসান রতন নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে তার বিএনপি করা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় রতন তাকে ‘তুই বিএনপি করিস’ এমন কথাও বলেন। উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সাইফুলকে মারধর করেন রতন। ঘটনাস্থল থেকে সাইফুল বাড়ি ফিরে যান।

jagonews24

পরে সাইফুলকে তার বন্ধুরা দুপুরে বাজারে আসার জন্য ডাকেন। তারপর সন্ধ্যায় সাইফুলের স্ত্রী তাকে মোবাইল ফোনে কল দিলে তিনি আর রিসিভ করেননি। পরিবারের লোকজন রাতে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও তাকে পাননি। সোমবার সকালে স্থানীয়রা পুলিশকে জানান দামুড়হুদা মুন্সীপুর সীমান্তের বাংলাদেশের অভ্যন্তরে মেহগনি বাগানে সাইফুল ইসলামের মরদেহ পড়ে আছে।

চুয়াডাঙ্গার সহকারী পুলিশ সুপার (দামুড়হুদা সার্কেল) আবু রাসেল বলেন, সাইফুল হত্যার রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে পুলিশ। স্থানীয় রতন নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে রোববার ঝামেলা হয়েছিল বলে জানতে পেরেছি। আর অন্য কোনো বিষয় আছে কি-না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা যায়নি। হত্যায় জড়িতদের অল্প সময়ের মধ্যে আটক করা সম্ভব হবে বলেও জানান তিনি।

সালাউদ্দীন কাজল/আরএআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]