মানবপাচারে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করলেন দুই নারী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মাদারীপুর
প্রকাশিত: ০৮:৩৪ এএম, ১১ জুন ২০২০

 

মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার পাঠানকান্দি ও বেপারীপাড়া গ্রামেল নারী মানবপাচারকারী চক্রের দুই সদস্যকে বুধবার রাতে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা। সকালে তাদের মাদারীপুরের রাজৈর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

তারা হলেন, পাঠানকান্দি গ্রামের আমির হোসেনের স্ত্রী রাশিদা বেগম (৪২) ও বেপারীপাড়া গ্রামের শাহাবুদ্দিনের স্ত্রী বুলু বেগম (৩৮)।

র‌্যাব-৮ মাদারীপুর ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম বুধবার বিকেলে এক প্রেস রিলিজের মাধ্যমে জানান, ২৬ জন বাংলাদেশিসহ ৩০ জনকে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যা এবং ১১ জন বাংলাদেশিকে গুরুতর আহত করে লিবিয়ায় অবস্থান করা মানবপাচারকারী চক্র।

মাদারীপুরের রাজৈর থানায় দায়ের হওয়ার মামলার আসামিদের ধরতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব সদস্যরা গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর থানাধীন দিগনগর এলাকা এবং বরিশালের গৌরনদী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অভিযান চালায়।

অভিযানকালে মুকসুদপুর থানাধীন দিগনগর গ্রাম থেকে রাশিদা বেগমকে গ্রেফতার করে। এর কিছুক্ষণ পর র‌্যাব সদস্যরা বরিশাল জেলার গৌরনদী বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে বুলু বেগমকে (৩৮) গ্রেফতার করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা উক্ত চক্রের সক্রিয় সদস্য বলে স্বীকার করেন। আসামি রাশিদা বেগমের স্বামী দীর্ঘদিন যাবৎ লিবিয়ায় অবস্থান করে এবং অবৈধভাবে লিবিয়ায় বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন উপায়ে মানবপাচার করে। রাশিদা বেগম ভিকটিমদের নিকটাত্মীয়দের কাছ থেকে টাকা উত্তোলন করে। গ্রেফতারকৃত আসামিরা মাদারীপুর জেলার রাজৈর থানায় গত ১ জুন ২০২০ দায়ের হওয়া মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইন মামলার এজাহার নামীয় আসামি।

প্রসঙ্গত, লিবিয়ায় হত্যার ঘটনায় মাদারীপুরের ১১ জন যুবক প্রাণ হারায় এবং ৪ জন গুরুতর আহত হয়। মাদারীপুরের নিহতদের পরিবারের সদস্যা রাজৈর ও মাদারীপুর সদর মডেল থানায় পৃথক ৮টি মামলা দায়ের করেন। থানায় দায়ের হওয়া এজাহার নামীয় আসামিদের র‌্যাব অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে।

এ কে এম নাসিরুল হক/এমএএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]