পদ্মার পানি বেড়ে ডুবে গেছে শিবচরের ৪ ইউনিয়নের ফসল

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মাদারীপুর
প্রকাশিত: ০২:৪৭ পিএম, ১২ জুলাই ২০২০

হঠাৎ করে পদ্মা নদীর পানি অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাওয়ায় মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার চরাঞ্চলের ৪টি ইউনিয়নে বন্যা হয়েছে। এতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। চলতি বর্ষা মৌসুমের শুরুতেই পানিতে তলিয়ে গেছে পুরো চরাঞ্চলের ধান, পাট, বাদাম ও সবজি চাষের ফসলি জমি। এতে চরম বিপাকে পড়েছেন স্থানীয় কৃষকরা। ক্ষতিগ্রস্ত এসব কৃষকের তালিকা করে সরকারি সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে শিবচর উপজেলা প্রশাসন ও মাদারীপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর।

এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত কৃষককরা জানান, চলাতি বর্ষা মৌসুমের শুরুতেই মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার পদ্মা নদীর চরাঞ্চল নিয়ে গঠিত বন্দরখোলা, মাদবরেরচর, চরজানাজাত ও কাঁঠালবাড়ী ইউনিয়ন বন্যায় তলিয়ে গেছে। এতে প্রায় ৩ হাজার হেক্টর জমির আমন ও আউস ধান, পাট, বাদাম ও সবজি বিনষ্ট হয়েছে। অতি দ্রুত পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় দেরিতে চাষ করা বাদাম ঘরে তুলতে পারেননি চাষিরা। পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় অপরিপক্ক পাট কাটতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। এতে আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন চরাঞ্চলের মানুষ।

মাদারীপুর কৃষি বিভাগের সূত্র মতে, এ চার ইউনিয়নের ২ হাজার ১০ হেক্টর জমির পাট, ১৯৫ হেক্টর জমির আউস ধান, ৫৪ হেক্টর জমির আমন ধান, ১৫ হেক্টর জমির রোপা আমন বীজতলা ও ১৪৪ হেক্টর জমির বিভিন্ন সবজি বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।

padma

মাদারীপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মো. মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, অতি দ্রুত ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা করে সরকারি সহায়তা প্রদান করা হবে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের পাশে দাঁড়াবে সরকার।

এছাড়াও গ্রামীণ রাস্তাঘাট ভেঙে গেছে আকস্মিক এ বর্ষায়। মাদবরচর শেখ জামাল সেতুর অ্যাপ্রোচ সড়কের দুটি স্থান ভেঙে চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। অযোগ্য হয়ে পড়েছে যানবাহন চলাচলও। স্থানীয়ভাবে কোনোমতে বালুর বস্তা ফেলে ভাঙনরোধ করেছেন স্থানীয়রা। শিবচর উপজেলা স্থানীয় সরকার বিভাগের (এলজিডি) উদ্যোগে রাস্তা সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

নাসিরুল হক/এফএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]