জোর করে বাল্যবিয়ের দুদিন পর কিশোরীর আত্মহত্যা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নীলফামারী
প্রকাশিত: ১০:৩৭ এএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
ফাইল ছবি

জোর করে বাল্যবিয়ে দেয়ায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে পিংকি আক্তার (১৪) নামে এক স্কুলছাত্রী। বৃহস্পতিবার দুপুরে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার চাঁদখানা ইউনিয়নের বসুনিয়া পাড়া গ্রামে মেয়েটির নানাবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত পিংকি একই ইউনিয়নের বোর্ড অফিসপাড়া গ্রামের কৃষক রাজু মিয়ার মেয়ে ও চাঁদখানা দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। বিকেলে পুলিশ পিংকির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলার মর্গে পাঠায়।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ২ দিন আগে পিংকির সঙ্গে বিয়ে হয় নীলফামারী সদরের চাপড়া সরনজামী ইউনিয়নের লতিফ চাপড়া গ্রামের সাঈদুল ইসলামের ছেলে লাজু মিয়ার (২৫)। লাজু মিয়া উত্তরা ইউপিজেডের একটি কারখানার শ্রমিক।

এলাকাবাসী জানায়, বাল্যবিয়েতে মত ছিল না পিংকির। বিয়ে হলেও পিংকিকে আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে দেয়া হয়নি। তাই সে বাবার বাড়ি ছেড়ে নানা শাহাদৎ হোসেনের বাড়িতে আসে। বুধবার লাজু মিয়া শ্বশুরবাড়িতে গেলে তাকেও পাঠিয়ে দেয়া হয় পিংকির নানার বাড়িতে। সেখানে তার স্বামী রাতে অবস্থান করে। এ অবস্থায় সবার অগোচরে সে ঘরের ভেতর ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে বলে পরিবারের দাবি।

কিশোরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল আউয়াল বলেন, পিংকির আত্মহত্যার ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা নিয়ে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলার মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জাহেদুল ইসলাম/এফএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]