জোয়ারে ভেঙেছে সড়ক, সংস্কারে নেমেছে ৩০ যুবক

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ০৬:২৮ পিএম, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে মেঘনা নদীর অস্বাভাবিক জোয়ারে ক্ষতিগ্রস্ত একটি সড়ক সংস্কারে নেমেছেন ৩০ যুবক। জনপ্রতিনিধিদের কাছে বার বার ধর্না দিয়ে কাজ না হওয়ায় নিজেরাই সংস্কার শুরু করেছেন তারা।

মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলার চরফলকন ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বীর মুক্তিযোদ্ধা নাছির উদ্দিন সড়কটি সংস্কার করতে দেখা গেছে যুবকদের। তিনদিন ধরে তারা স্বেচ্ছায় কাজটি করছেন। এতে দূর্ভোগ লাঘব হচ্ছে হাজারো মানুষের।

এ কাজে এগিয়ে এসেছেন রিপন হোসেন, ফিরোজ, মো. সবুজ, ইব্রাহিম স্বপন, আকবর হোসেন, রিয়াজ হোসেন, নূর করিম, আলাউদ্দিন, বাবলু, আজগর, মঞ্জুর, রাশেদ, রাকিব, হারুন, রুবেলসহ ৩০ জন। তারা ওই এলাকার বাসিন্দা। চলাচলের অনুপযোগী সড়কটি মাটি ভর্তি বস্তা ফেলে এখন চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে।

Lakshmipur-kamalnagar-2

জানা গেছে, সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন উপজেলার জাজিরা এলাকা ও সাহেবেরহাট ইউনিয়নের কয়েক হাজার মানুষ চলাচল করেন। গত বছরের আগস্টে মেঘনার কয়েক দফা অস্বাভাবিক জোয়ার ও অতিবৃষ্টিতে ভেঙে সড়কটির ২০০ মিটার খালে পড়ে যায়। এতে সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে দূর্ভোগে পড়ে হাজারো মানুষ। বিষয়টি স্থানীয়রা জনপ্রতিনিধিদের জানালেও কানে তোলেননি। এজন্য বাধ্য হয়ে স্থানীয় যুবকরা সড়কটি সংস্কারের উদ্যোগ নেন।

মাতাব্বরহাটের ব্যবসায়ীরা জানায়, সড়কটি দীর্ঘদিন থেকে মেরামত না হওয়ায় বাজারে মানুষের যাতায়াত কমে গেছে। যে কারণে বেচাকেনা কমে তাদের লোকসানের মুখে পড়তে হচ্ছে। এখন রাস্তা সংস্কারে মানুষ আবারও বাজারে আসতে সুবিধা হবে।

এ ব্যাপারে বীর মুক্তিযোদ্ধা নাছির উদ্দিন বলেন, ‘সড়কটি সংস্কারে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আবগত করা হয়েছে। কিন্তু সংস্কারের আশ্বাস দিলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। অবশেষে স্বেচ্ছাশ্রমে স্থানীয় যুবকরা সড়কটি সংস্কার করেছে। তবে সড়কটি অতিদ্রুত স্থায়ীভাবে মেরামত করতে হবে। তা না হলে আগামি বর্ষায় খালে বিলীন হয়ে যাবে।’

কাজল কায়েস/আরএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]