নারীর অর্থ লুট : সেই এসআইসহ ৩ পুলিশকে জিজ্ঞাসাবাদ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার
প্রকাশিত: ০৫:৫৪ পিএম, ০৩ মার্চ ২০২১
ফাইল ছবি

কক্সবাজার শহরে বাড়িতে ঢুকে নারীকে মারধর করে তিন লাখ টাকা লুটের অভিযোগে গ্রেফতার পুলিশের তিন সদস্যকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

বুধবার (৩ মার্চ) দুপুরে পুলিশ হেড কোয়াটার্স কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটি কক্সবাজার সদর মডেল থানায় তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এ সময় মামলার বাদী রোজিনা খাতুনসহ আরও কয়েকজনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়েছে।

কক্সবাজার সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ মুনীর উল গীয়াস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, কক্সবাজার শহরের মধ্যম কুতুবদিয়া পাড়ার রিয়াজ আহমদের স্ত্রী রোজিনা খাতুনের ব্যাগ ভর্তি টাকা স্থানীয় দু’ব্যক্তির সহযোগিতায় সাদা পোশাকে থাকা পুলিশের তিন সদস্য লুটের চেষ্টা করেন। ঘটনাটি প্রাথমিক সত্যতা মেলায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলার পাশাপাশি তিন পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

ওসি আরও জানান, বিষয়টি নিয়ে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে একটি তদন্ত টিম গঠন করে পুলিশ হেড কোয়াটার্স। চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার সাইদুর রহমানের নেতৃত্ব এ কমিটি বুধবার দুপুরে কক্সবাজার মডেল থানায় আসে। সেখানে রিমান্ডে থাকা তিন পুলিশ সদস্য উপপরিদর্শক (এসআই) নুর-ই খোদা ছিদ্দিকী, কনস্টেবল আমিনুল মমিন ও মামুন মোল্লাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে তদন্ত টিম। একই সঙ্গে ভুক্তভোগী রোজিনা খাতুন ও কয়েকজন সাক্ষীর জবানবন্দিও নেয় তারা।

উল্লেখ্য, গত সোমবার (১ মার্চ) সন্ধ্যার পর কক্সবাজার শহরের মধ্যম কুতুবদিয়া পাড়ার রিয়াজ আহমদ নামের এক ব্যক্তির স্ত্রী রোজিনা খাতুনের ব্যাগ ভর্তি টাকা স্থানীয় দু’ব্যক্তির সহযোগিতায় সাদা পোশাকে থাকা পুলিশের তিন সদস্য লুটের চেষ্টা করেন। ব্যাগ নিয়ে চারজন চলে যেতে পারলেও একজনকে ওই নারী ঝাপটে ধরে ফেলেন।

নারীর চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে ওই পুলিশ সদস্যকে আটকের পর জরুরি সেবা ৯৯৯ ফোন করে কক্সবাজার সদর থানা পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়। বিষয়টি জানার পরই দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আটক পুলিশ সদস্যকে হেফাজতে নেয়া হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদে অপর সহযোগীদের নাম জেনে তাদেরও থানায় ডাকে সদর থানা পুলিশ।

জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনায় সম্পৃক্ততার প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা করা হয়। বিধানমতে মঙ্গলবার সকালে তাদের চাকরি থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

তিন পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়। আদালত তাদের দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বুধবার তাদের রিমান্ডের প্রথমদিন ছিল। সেখানেই তদন্ত টিম তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে।

সায়ীদ আলমগীর/এসজে/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]