মোবাইলে লুডু খেলা নিয়ে বিরোধ, শিশুকে শ্বাসরোধে হত্যা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মাদারীপুর
প্রকাশিত: ০২:০৭ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১

মাদারীপুরের শিবচরে মোবাইলে লুডু খেলা নিয়ে বিরোধের জেরে রতন মোল্লা (৮) নামে এক শিশুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। গুরুতর জখম করা হয়েছে সোহান (৯) নামে আরেক শিশুকে। এ ঘটনায় মেহেদী হাসান (১৮) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন আটক ওই যুবক।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুই শিশুকে বেড়ানোর কথা বলে এক্সপ্রেস হাইওয়েতে নিয়ে যান মেহেদী। সেখানে সংঘটিত হয় ভয়াবহ এই হত্যাকাণ্ড।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শিবচর উপজেলার কাদিরপুর ইউনিয়নের চরকান্দি এলাকায় নানাবাড়ি বেড়াতে যান মো. মেহেদী হাসান। সেখানে প্রতিবেশি কৃষক জসিম মোল্লার একমাত্র ছেলে প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী রতন মোল্লা ও নাসির সিকদারের ছেলে সোহানের সঙ্গে মোবাইলে লুডু খেলতেন তিনি। মঙ্গলবার সকালে সোহানের মায়ের মোবাইলে লুডু খেলছিলেন তারা। এসময় রতন ও সোহান মেহেদীকে বকা দেয়। এতে ক্ষুব্ধ হন মেহেদী।

jagonews24

পুলিশ জানায়, এরপরই ওই দুই শিশুকে হত্যার পরিকল্পনা করেন মেহেদী হাসান। পরিকল্পনা অনুযায়ী বেড়ানো ও নতুন রেস্টুরেন্টে খাওয়ানোর কথা বলে তাদেরকে পদ্মা সেতুর অ্যাপ্রোচ সড়ক সংলগ্ন নির্জন স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে পানি ও চানাচুর আনতে ১০০ টাকা দিয়ে সোহানকে দোকানে যেতে বলেন মেহেদী। সোহান চলে যেতেই রতনকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন তিনি। ঘটনার প্রায় ২০ মিনিট পর সোহান এসে রতনের খোঁজ জানতে চায়। এসময় মেহেদী জানান, রতন বাড়ি চলে গেছে। পরে সোহানকে নিয়ে বাংলাবাজার ঘাট এলাকায় যান তিনি। সেখানে নিয়ে সোহানকেও শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করা হয়। এসময় সোহানের চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে পালিয়ে যান মেহেদী। পরে স্বজনরা মেহেদীর সারা শরীর কাঁদা দেখে রতন ও সোহানের খোঁজ চান। কিন্তু কৌশলে বিষয়টি এড়িয়ে যান তিনি। পরে থানায় খবর দেন স্বজনরা।

jagonews24

পুলিশ আরও জানায়, সহকারী পুলিশ সুপার মো. আনিসুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিরাজ হোসেন, পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আমির সেরনিয়াবাতসহ পুলিশের একাধিক দল ঘটনাস্থলে গিয়ে মেহেদীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। এসময় হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেন তিনি। দেখিয়ে দেন রতনের মরদেহও। মঙ্গলবার দিনগত রাতে শিশু রতনের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিরাজ হোসেন জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মেহেদী জানিয়েছে মোবাইলে লুডু খেলার সময় বকা দেওয়ায় রতনকে হত্যা করা হয়েছে। রতনের স্মার্টফোনটিও তার কাছ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ কে এম নাসিরুল হক/এফআরএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]