কুমুদিনী হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স ও চিকিৎসাসামগ্রী উপহার দিলো ভারত

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি টাঙ্গাইল
প্রকাশিত: ০৮:২৫ পিএম, ১৪ অক্টোবর ২০২১

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে অবস্থিত কুমুদিনী হাসপাতালে একটি লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্স এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসামগ্রী উপহার দিয়েছে ভারত সরকার।

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী কুমুদিনী কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাহা এবং হাসপাতালটির পরিচালক ড. প্রদীপ কুমার রায়ের কাছে উপহার সামগ্রী হস্তান্তর করেন।

jagonews24

ভারতীয় হাইকমিশনের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, সম্পূর্ণ নতুন এসএমএল ব্র্যান্ডের আধুনিক, জরুরি জীবন রক্ষাকারী যন্ত্রপাতি দ্বারা সজ্জিত অ্যাম্বুলেন্সটি চিকিৎসার জন্য হাসপাতালগামী রোগীদের মানসম্মত জরুরিসেবা এবং ট্রমা লাইফ সাপোর্ট প্রদান করতে প্যারামেডিক এবং প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের সাহায্য করবে।

২০২১ সালের মার্চ মাসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরকালে ঘোষণা করা ১০৯টি লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্স সরবরাহের সামগ্রিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে অ্যাম্বুলেন্সটি দেওয়া হয়েছে। লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্সটি এবং চিকিৎসাসামগ্রী টাঙ্গাইল এবং তার আশপাশের মানুষের জন্য কোভিড মহামারিকালে এবং এর বাইরেও মানসম্মত চিকিৎসাসেবা প্রদানে সহায়তা করবে।

jagonews24

লাইফ সাপোর্ট অ্যাম্বুলেন্সটি মহামারি পরবর্তীকালেও বাংলাদেশের জনগণের জন্য কুমুদিনী হাসপাতালের মানসম্মত চিকিৎসাসেবার চলমান সম্প্রসারণকে শক্তিশালী করবে। উপহারটি বাংলাদেশের মানুষের সঙ্গে অনন্য এবং বিশেষ বন্ধুত্বের প্রতি ভারতের অটুট এবং দীর্ঘমেয়াদি অঙ্গীকারের প্রতিনিধিত্ব করে।

কুমুদিনী কমপ্লেক্স পরিদর্শনকালে হাইকমিশনার কমপ্লেক্সের মধ্যে এবং ওই এলাকায় স্থাপিত চমৎকার পূজা প্যান্ডেলে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি সবাইকে মহানবমীর শুভেচ্ছা জানিয়ে উল্লেখ করেন যে, সব সম্প্রদায়ের দ্বারা পূজার আনন্দ উদযাপন এবং সমগ্র মানবতার সেবার মনোভাব বাংলাদেশের মানুষের উদার ও অন্তর্ভুক্তিমূলক ঐতিহ্যকে পুরোপুরিভাবে প্রতিফলিত করে, যেমনটি মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে নির্ধারিত হয়েছে এবং যার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের জনগণের স্বাধীনতার সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

এমআরআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected].com