কন্যাসন্তান জন্ম: খুশিতে মেয়েকে চাঁদের জমি উপহার দিলেন বাবা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি টাঙ্গাইল
প্রকাশিত: ০৫:২০ পিএম, ২৭ অক্টোবর ২০২১

কন্যাসন্তানের বাবা হওয়ার খুশিতে চাঁদে কেনা জমি মেয়েকে উপহার দিয়েছেন টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার বাসিন্দা আল আমিন ইসলাম সোহেল। তবে মেয়ের বয়স কম হওয়ায় বুধবার (২৭ অক্টোবর) সকালে জমির কাগজপত্র স্ত্রীর হাতে তুলে দেন তিনি।

সোহেল উপজেলার দাড়িয়াপুর ইউনিয়নের প্রতিমা বংকী গ্রামের সাদিকুর রহমানের ছেলে। এর আগে ৩১ আগস্ট কন্যাসন্তানের বাবা হন তিনি। তিনি মেয়ের নাম রেখেছেন আলিশা জাহান।

আল আমিন সোহেল জাগো নিউজকে বলেন, কন্যা আলিশা জন্মের পর থেকেই তাকে ব্যতিক্রমী কী উপহার দেওয়া যায় এমন একটি চিন্তা মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছিল। যুক্তরাষ্ট্রে এক মামা বসবাস করেন। পরে তার মাধ্যমে অনলাইনে (লুনারল্যান্ড ডটকম) চাঁদে এক একর জমির অর্ডার দিয়েছিলাম। সেই জমির কাগজপত্র আজ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছি। বর্তমানে আমার মেয়ে আলিশা জাহান অপ্রাপ্তবয়স্ক থাকায় আমার নামেই জমিটুকু কেনা হয়েছে। প্রাপ্তবয়স্ক হলেই তার নামে কাগজপত্র করা হবে।

তিনি আরও বলেন, জমিটুকু কিনতে সব মিলিয়ে আমার ২০০ ডলার খরচ হয়েছে। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১৭ হাজার টাকা। মেয়েকে চাঁদের জমি উপহার দিতে পেরে খুব ভালো লাগছে। পরিবারের লোকজনও খুশি হয়েছে।

দাড়িয়াপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শাহ আলম সিকদার বলেন, আমাদের সমাজে কিছু মানুষ এখনো কন্যাসন্তানকে এক প্রকার বোঝা মনে করেন। সেখানে আল আমিন নামের ওই যুবক কন্যাসন্তান জন্মের খুশিতে চাঁদের জমি কিনে উপহার দিয়েছেন। বিষয়টি অবশ্যই সমাজের জন্য ইতিবাচক এবং কুসংস্কার দূর করতে উৎসাহিত করবে।

দাড়িয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আনছার আলী আসিফ বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে কিভাবে আর কার মাধ্যমে তিনি চাঁদে জমি কিনেছেন সে বিষয়টি আমার জানা নেই।

আরিফ উর রহমান টগর/এসআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]