ফরিদপুরে এক ইউপিতে বাবা-ছেলে ও আপন দুই ভাই চেয়ারম্যান প্রার্থী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ০২:১২ পিএম, ২৬ নভেম্বর ২০২১

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার বানা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বাবা-ছেলে ও আপন দুই ভাই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এ ঘটনায় উপজেলা জুড়ে চাঞ্চল্য ও হাস্যরসের সৃষ্টি হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার বানা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হাদী হুমায়ুন কবীর বাবু (বিদ্রোহী-স্বতন্ত্র) ও তার ছেলে হাদী ইমতিয়াজ কবীর শামীম (স্বতন্ত্র) প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেন। তারা উপজেলার রুদ্র বানা গ্রামের বাসিন্দা।

এছাড়া, একই ইউনিয়নে আপন দুই সহোদর চেয়ারম্যান পদে (বিদ্রোহী-স্বতন্ত্র) প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। তারা হলেন- উপজেলার কঠুরাকান্দী গ্রামের বাসিন্দা ও কৃষক লীগ নেতা মো. হারুন-অর-রশিদ শরীফ ও তার আপন ছোট ভাই মো. নজরুল ইসলাম শরীফ।

এ বিষয়ে বানা ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. হারুন-অর-রশিদ শরীফ জাগো নিউজকে বলেন, আমরা দুই ভাই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছি এটা ঠিক। এটা গণতান্ত্রিক ও স্বাধীন দেশ। প্রত্যেকেরই আলাদা স্বাধীনতা আছে। আমিও মনোনয়ন জমা দিয়েছি, আমার ভাইও জমা দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, আমি দলীয় মনোনয়ন চাইনি। তবে আমি মনোনয়ন প্রত্যাহার করবো না, শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে লড়ে যাবো। তিনি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানান।

এ ব্যাপারে বানা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হাদী হুমায়ুন কবীর বাবু (বিদ্রোহী-স্বতন্ত্র) জাগো নিউজকে বলেন, আমি ও আমার ছেলে দুইজনই মনোনয়নপত্র দাখিল করেছি। যাচাই-বাছাই শেষ হওয়ার পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে দুইজনই প্রার্থী থাকবো না, একজন থাকবো।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার শামীম আহমাদ জানান, বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার শেষ দিনে উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের তিনজন প্রার্থীসহ মোট ২১ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। ২৯ নভেম্বর প্রার্থীদের জমা দেওয়া মনোনয়নপত্র বাছাই করা হবে। প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা যাবে ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত। প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে ৭ ডিসেম্বর এবং ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২৬ ডিসেম্বর।

এন কে বি নয়ন/এমআরআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]