আ’লীগের মনোনয়ন পেয়েও অবৈধ!

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মৌলভীবাজার
প্রকাশিত: ০৪:০৬ পিএম, ৩০ নভেম্বর ২০২১

মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার কামারচাক ইউনিয়ন নির্বাচনে দুই প্রার্থীকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। পরে প্রার্থী যাচাই-বাছাইয়ে একজনকে অবৈধ ঘোষণা করা হয়। উপজেলা বিআরডিবি কার্যালয়ের আশপাশে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২৩ নভেম্বর চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার কামারচাক ইউনিয়নে নাজমুল হক সেলিমের নাম উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়। পরদিন সন্ধ্যায় শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদের উপজেলা আহ্বায়ক মো. আতাউর রহমানকে দলীয় মনোনয়ন দেখিয়ে আরেকটি তালিকা প্রকাশ করা হয়।

ওই প্রত্যয়ন দিয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে ২৫ নভেম্বর সকালে মনোনয়নপত্র জমা দেন আতাউর রহমান। তবে ওই দিন দুপুরে নজমুল হক সেলিমকেই দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে বলে চূড়ান্ত একটি দলীয় প্রত্যয়ন প্রকাশ করা হয়। তিনিও বিকেলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেন। উভয়েই নিজেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বলে দাবি করেন।

সোমবার (২৯ নভেম্বর) মনোনয়নপত্র বাছাইর দিনে মো. আতাউর রহমান আওয়ামী লীগের প্রার্থী বদলের চিঠি রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে দাখিল করেন। কামারচাক ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তা মনোনয়ন যাচাই-বাছাই শেষে নজমুল হক সেলিমের মনোনয়ন আপিলের সুযোগ দিয়ে বাতিল করেন।

চেয়ারম্যান প্রার্থী আতাউর রহমান বলেন, ২৫ নভেম্বর নজমুল হকের পত্রের পরপর আবার আমাকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত মনোনয়ন দিয়েছে।

মনোনয়ন অবৈধ হওয়া নাজমুল হক সেলিম বলেন, দলীয় মনোনয়ন বৈধ প্রমাণ করার জন্য কেন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ করছি। আমার মনোনয়ন ফিরিয়ে আনার জন্য আমি আইনি প্রক্রিয়া চালাবো।

এ বিষয়ে রাজনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিলন বখত জাগো নিউজকে বলেন, ২৫ নভেম্বর দলীয় সভানেত্রী স্বাক্ষর করে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদের হাতে দেন। ২৫ নভেম্বর ছিল মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন। এরপর দলীয় সভানেত্রী অন্য কাউকে এ ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার সময় ছিল না। হয়তোবা স্ক্যান করে স্বাক্ষর বসিয়ে দলীয় মনোনয়নের কাগজ জমা দিতে পারে।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এমদাদুল হক বলেন, টেংরা ইউনিয়নে আকমল হোসেন ও কামারচাক ইউনিয়নে নজমুল হক সেলিমের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। কামারচাকে দুজন প্রার্থী নৌকা প্রতীকের প্রত্যয়ন নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। একজনেরটা বাতিল করা হয়েছে। আমরা বাতিলের নোটিশ প্রকাশ করেছি।

আব্দুল আজিজ/এসজে/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]