‘জাওয়াদ’র প্রভাবে কুয়াকাটায় বৃষ্টি, বেড়েছে জোয়ারের পানি

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি কলাপাড়া (পটুয়াখালী)
প্রকাশিত: ০৬:৩৫ পিএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১

পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’ আরও উত্তর-উত্তর পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এর প্রভাবে পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে জোয়ারের পানি কিছুটা বেড়েছে। একই সঙ্গে হচ্ছে বৃষ্টিও।

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) সকাল থেকেই উপকূলীয় এলাকায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হলেও বিকেলে বৃষ্টি বাড়তে শুরু করে। বৃষ্টি ও শীতে ভোগান্তিতে পড়েছেন কুয়াকাটায় আসা পর্যটকরা। আবার অনেক পর্যটক বৃষ্টি উপেক্ষা করে সৈকত ঘুরে বেড়ান। বৈরী আবহাওয়ায় অনেক পর্যটক ফিরে যাচ্ছেন।

পর্যটক সিকান্দার তানভীর বলেন, আমি শুক্রবার কুয়াকাটায় আসছি। আরও দুদিন থাকতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আজকে বৃষ্টি হচ্ছে সঙ্গে আবহাওয়াও অনেক খারাপ। তাই আজকেই চলে যাচ্ছি।

jagonews24

ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোনের পরিদর্শক হাসনাইন পারভেজ জাগো নিউজকে বলেন, আজকে বৃষ্টি হচ্ছে। আকাশও মেঘাচ্ছন্ন। তাই সৈকতে পর্যটক কম। সমুদ্র যদি বেশি উত্তাল হতে শুরু করে সঙ্গে সঙ্গে পর্যটকদেরকে সৈকত থেকে সরিয়ে নিরাপদে যাওয়ার নির্দেশ দিবো। আমাদের টিম সবসময় সৈকতে তৎপর আছে।

পটুয়াখালী জেলা আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুদ রানা জাগো নিউজকে বলেন, রোববার থেকে বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা বাড়তে পারে। একই সঙ্গে শীতের তীব্রতাও বাড়তে পারে। ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ ভারতের উপকূল দিয়ে অতিক্রম করার সম্ভাবনা আছে।

তিনি আরও বলেন, তবে চট্রগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছধরার ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

আসাদুজ্জামান মিরাজ/এসজে/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]