চাঁদা না পেয়ে নদীভাঙন রোধ প্রকল্পের সুপারভাইজারকে মারধর

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ১০:০১ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০২২
ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়র কোম্পানির ফিল্ড সুপারভাইজার আসাদুল ইসলাম

বরিশালের হিজলা উপজেলায় নদীভাঙন রোধে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ার কোম্পানির ফিল্ড সুপারভাইজারকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মীদের বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) রাত ৭টার দিকের এ ঘটনায় আহত সুপারভাইজার আসাদুল ইসলাম বাদী হয়ে হিজলা থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) বরিশাল কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, হিজলা ও মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধানে প্রায় সাড়ে ৩০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নদীভাঙন রোধে জিও ব্যাগ ও ব্লক ফেলানো এবং ব্লক ডাম্পিংসহ ১৮টি প্যাকেজের কাজ চলছে। এরমধ্যে প্রায় ৩৫ কোটি টাকার ১৪ ও ১৬ প্যাকেজের কাজ করছে ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ার কোম্পানি।

থানায় লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মো. শামীম, মো. আকরাম ও মো. সবুজসহ চারজন আওয়ামী লীগ কর্মী সোমবার রাতে কর্মস্থলে গিয়ে ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ার কোম্পানির ফিল্ড সুপারভাইজার আসাদুল ইসলামকে খুঁজতে থাকেন। একপর্যায়ে তারা আসাদুলকে পেয়ে দেড় কোটি টাকা চাঁদা দাবি করেন। তা না হলে কাজ বন্ধের হুমকি দেন। তখন তাদের কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য বললে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আসাদুলকে মারধর করেন। পরে নানা হুমকি দিয়ে তারা চলে যান।

নাম না প্রকাশের শর্তে স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা জানান, দেড় কোটি টাকা চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে ফিল্ড সুপারভাইজারের হাত-পা বেঁধে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে নিয়ে মারধর করা হয়। খবর পেয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কয়েকজন কর্মকর্তা ও ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ার কোম্পানির সাইট ইঞ্জিনিয়ার কামরুল ইসলাম গিয়ে আসাদুলকে উদ্ধার করেন। পরে আসাদুলকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পাউবো বরিশাল কার্যালয়ে নির্বাহী প্রকৌশলী দীপক রঞ্জন দাস বলেন, ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ার কোম্পানির কয়েকজন কর্মকর্তা বিষয়টি ফোন করে আমাকে জানিয়েছেন। আমি তাদের আইনের আশ্রয় নেওয়ার কথা বলেছি।

হিজলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বকুল চন্দ্র কবিরাজ বলেন, বিষয়টি আমাকে জানানো হয়েছে। আমি তাদের মামলার পরামর্শ দিয়েছি।

ধুলখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, বিষয়টি যেমন রটানো হচ্ছে ঘটনা তেমন নয়। ওই কোম্পানি বিভিন্ন সময় বহিরাগত সন্ত্রাসীদের টাকা দিয়ে আসছেন। স্থানীয় কয়েকজন যুবক গিয়ে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের টাকা দিতে নিষেধ করেন। এ নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে স্থানীয় এক যুবক আসাদুলকে থাপ্পড় দিয়েছেন বলে জানতে পেরেছি। আর আলীগঞ্জ বাজারে আমার কার্যালয়ে তুলে এনে আসাদুলকে মারধরের অভিযোগ সত্য নয়।

হিজলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইউনুস মিয়া জাগো নিউজকে বলেন, ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ার কোম্পানির ফিল্ড সুপারভাইজারকে চাঁদার দাবিতে মারধরের অভিযোগ এনে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। অভিযোগ তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সাইফ আমীন/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]