স্বামী মোটরসাইকেল স্ত্রী রজনীগন্ধ্যা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি জয়পুরহাট
প্রকাশিত: ১০:১০ এএম, ২৫ জানুয়ারি ২০২২
ফাইল ছবি

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার ৮নং আওলাই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে স্বামী-স্ত্রীসহ সাতজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের সময় শেষ হলেও স্বামী-স্ত্রীসহ সাত জনের মধ্যে কেউ মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করায় শনিবার তাদের নামে প্রতীকও বরাদ্দ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

সোমবার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

উপজেলার ৮নং আওলাই (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী একরামুল হক চৌধুরী তাওহীদ (মোটরসাইকেল), তার স্ত্রী নিলুফা আক্তার লিপি (রজনীগন্ধ্যা), এসএম ইব্রাহিম হোসাইন (নৌকা), আব্দুর রাজ্জাক মন্ডল (ঘোড়া), ওবায়দুর রহমান (চশমা), সোহেল ফকির (টেলিফোন) ও আজিজুল হক (আনারস)।

এছাড়াও উপজেলার ৭নং কুসুম্বা (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে জিহাদ মন্ডল নৌকা প্রতীকে ও আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী মুক্তার হোসেন মন্ডল আনারস প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

৮নং আওলাই ইউনিয়নের নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক একাধিক ভোটার জানান, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী একরামুল হক চৌধুরী (তাওহীদ) ও তার স্ত্রী নিলুফা আক্তার লিপি দুইজনই চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন। এর পেছনে কারণ হলো কোনো কারণে স্বামী তাওহীদের প্রার্থিতা বাতিল হলে স্ত্রী নিলুফা আক্তার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতেন। যেহেতু দুইজনেরই প্রার্থিতা বৈধ হয়েছে। অতএব দুইজনের নামেই প্রতীক বরাদ্দ হয়েছে। এখন হয়ত স্ত্রী নিলুফা আক্তার প্রচারণা চালাবেন না।

চেয়ারম্যান প্রার্থী একরামুল হক চৌধুরী (তাওহীদ) ও তার স্ত্রী নিলুফা আক্তার লিপির সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তারা মোবাইল ধরেননি।

পাঁচবিবি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য ৭ম ধাপের (ইউপি) নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরেপক্ষ করতে সব রকমের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। নির্বাচন চলাকালীন সময়ে প্রার্থীদের আচারণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থাও নেওয়া হবে।

রাশেদুজ্জামান/এফএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]