চাচা শ্বশুরকে হত্যার দায়ে যুবকের যাবজ্জীবন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পিরোজপুর
প্রকাশিত: ০৬:৫৮ পিএম, ২৭ জুন ২০২২
আদালতে পুলিশ হেফাজতে দণ্ডপ্রাপ্ত বেল্লাল

পিরোজপুরের নেছারাবাদে চাচা শ্বশুরকে হত্যার দায়ে বেল্লাল ব্যাপারী (২৮) নামের এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে তার আরও তিন মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

সোমবার (২৭ জুন) বিকেলে আসামির উপস্থিতিতে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মুহা. মুহিদুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দক্ষিণ সোহাগদল গ্রামের বেল্লাল ব্যাপারী প্রতিবেশী মনির হোসেনের মেয়ে বৃষ্টিকে তুলে নিয়ে বিয়ে করেন। বিয়ের পর বৃষ্টি স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে বাবাবাড়ি চলে আসেন। এরপর বৃষ্টি ঢাকায় চলে যান। ২০১৬ সালের ৬ জুলাই বৃষ্টি ঢাকা থেকে ফুপা সেলিমের বাড়ি যান। ওই দিন রাতে বেল্লাল ব্যাপারী সেলিমের বাড়ি গিয়ে বৃষ্টিকে জোর করে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করেন। বৃষ্টির যেতে না চাইলে বেল্লাল ওই বাড়িতে ভাঙচুর চালান।

এ নিয়ে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে বেল্লাল ধারালো কুড়াল দিয়ে চাচা শ্বশুর আব্দুর রহিমকে কুপিয়ে জখম করেন। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার পরদিন আব্দুর রহিমের ভাই আব্দুর রব খলিফা বাদী হয়ে বেল্লাল ব্যাপারীসহ ছয়জনের নামে থানায় মামলা করেন।

২০১৭ সালের ৬ জানুয়ারি পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডির) পরিদর্শক মো. বিল্লাল কাজী ছয় আসামির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) খান মো. আলাউদ্দিন জাগো নিউজকে বলেন, মামলার ২২ জন সাক্ষী সাক্ষ্য দেন। অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত বেল্লাল ব্যাপারীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। একইসঙ্গে ২০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও তিন মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

আসামি পক্ষের আইনজীবী দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘আমরা এ রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবো।’

এসজে/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]