জায়ের সঙ্গে স্বামীর পরকীয়ার বলি গৃহবধূ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি জামালপুর
প্রকাশিত: ০৪:১৮ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
নিহত গৃহবধূ সীমা আক্তার

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নির্যাতনে সীমা আক্তার (২২) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। সীমার স্বামী ও জায়ের মধ্যে পরকীয়ার জেরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে নিহতের স্বজনদের অভিযোগ।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের ডোয়াইল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত গৃহবধূ ওই গ্রামের মুদি দোকানি জুয়েল রানার স্ত্রী। নিহতের চার মাস বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। এদিকে, ঘটনার পর থেকেই স্বামী ও শ্বশুরের পরিবারের লোকজন বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, ডোয়াইল গ্রামের জুয়েল রানার সঙ্গে তার ভাবির দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া চলে আসছিল। এ নিয়ে তিন বছর আগে জুয়েল ও তার প্রথম স্ত্রীর মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে। এরপর চর বালিয়া গ্রামের সুরুজ ভুঁইয়ার মেয়ে সীমা আক্তারকে জুয়েল দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এ বিয়ের পরও ভাবির সঙ্গে জুয়েলের পরকীয়ায় চলতে থাকায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কিছুদিন ধরে দাম্পত্য কলহ চলছিল।

এ নিয়ে সোমবার সন্ধ্যায় জুয়েল ও তার পরিবারের লোকজন সীমাকে বেধড়ক মারধর করেন। পরে অবস্থা বেগতিক দেখে তাকে টাঙ্গাইলের ধনবাড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে, হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ধামাচাপা দিতে হাসপাতাল থেকে মরদেহ আনার পথে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মৃত্যু বলে প্রচার করা হয়। পথিমধ্যে কেন্দুয়া বাজার এলাকায় নিহতের পরিবার মরদেহ দেখতে চাইলে জুয়েল আপত্তি জানান। পরে পুলিশ গিয়ে রাতেই মরদেহ উদ্ধার করে।

সরিষাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মুহাম্মদ মহব্বত কবীর জাগো নিউজকে বলেন, লোকমুখে শুনেছি পরকীয়ার জেরেই সীমার মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকে স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মো. নাসিম উদ্দিন/এমআরআর/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।