শত বছর পার ৬৪ রেলসেতু-কালভার্ট

শেখ মহসীন
শেখ মহসীন শেখ মহসীন ঈশ্বরদী (পাবনা)
প্রকাশিত: ০২:৪৬ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২
ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ রেললাইনের পুরোনো সেতু

পাবনার ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ রেললাইন ব্রিটিশ শাসনামলের ১৯১৫-১৬ সালে নির্মাণ হয়। ৯৮ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য এ রেলপথে ২১টি স্টেশন স্থাপন করা হয়। পাশাপাশি ৬৪টি সেতু ও কালভার্ট নির্মাণ হয়। এগুলো প্রায় ১০৭ বছর সময়কাল অতিক্রম করেছে। এখনো এসব সেতু-কালভার্ট দিয়ে বীরদর্পে ছুটে চলছে ট্রেন। কিন্তু সেতুগুলো মেয়াদোত্তীর্ণ হলেও রেল কর্তৃপক্ষের দাবি নিয়মিত সংস্কারে ট্রেন চলাচলে কোনো ঝুঁকি নেই।

পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে সেতু প্রকৌশলী কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০০২-০৪ সালে ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ পুরো রেলপথ পুনর্নির্মাণ করা হয়। সে সময় বেশ কয়েকটি রেল সেতুও পুনর্নির্মাণ ও সংস্কার হয়। এছাড়া বছর জুড়েই সেতু ও কালভার্ট পরিদর্শন চলমান রয়েছে। কোনো সেতু সংস্কারের প্রয়োজন হলে সঙ্গে সঙ্গেই তার কাজ শুরু হয়ে যায়।

jagonews24

বর্তমানে ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ রুটে ভাঙ্গুড়ার বাউজান এলাকার ২৫ নম্বর রেলসেতুর সংস্কার কাজ চলছে। বর্তমানে সেতুর নিচে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সেতু সংস্কার কাজ স্থগিত রয়েছে। পানি কমে গেলে সংস্কার কাজ শুরু হবে।

সিরাজগঞ্জ রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী আহসান হাবীব জাগো নিউজকে বলেন, প্রতি মাসেই রেল সেতু ও কালভার্টগুলো একাধিকবার মনিটরিং করা হয়। ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ রুটের কোনো সেতু ঝুঁকিপূর্ণ নয়। বাউজান এলাকার ২৫ নম্বর সেতু সংস্কার প্রয়োজন এজন্য রেল কর্তৃপক্ষ কাজ শুরু করেছে। এটি যেন ঝুঁকিপূর্ণ না হয় এজন্য সংস্কার চলছে। তাই এখানে ট্রেনের গতি নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। অনেকেই ভেবে থাকেন ঝুঁকিপূর্ণ সেতুর জন্য গতি নিয়ন্ত্রণ করা হয় এটি আসলে ঠিক নয়।

পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা সাজেদুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ রেলপথ দিয়ে প্রতিদিন ৪২টি আন্তঃনগর, একটি কমিউটার ও একটি মেইল ট্রেন নিয়মিত চলাচল করে। এছাড়া এ পথে প্রতিদিন গড়ে দু-তিনটি মালবাহী ট্রেন চলছে।

পাকশী রেলওয়ে বিভাগীয় প্রকৌশলী (ডিএন-২) বীরবল মন্ডল জাগো নিউজকে বলেন, ২৫ নম্বর সেতুটি এখন যে পর্যায়ে রয়েছে তা ঝুঁকিপূর্ণ নয়। অদূর ভবিষ্যতে ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে এজন্য সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে। ব্রিজের নিচে পানি বাড়ায় আপাতত সংস্কার কাজ বন্ধ আছে। পানি কমে গেলে আবার কাজ শুরু হবে।

jagonews24

পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে সেতু প্রকৌশলী আব্দুর রহিম জাগো নিউজকে বলেন, ২০০২-২০০৪ সালে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ইরকোন ঈশ্বরদী-সিরাজগঞ্জ রেললাইন পুনর্নির্মাণের সময় এ রুটের অধিকাংশ সেতু সংস্কার করা হয়। সে সময় বেশ কয়েকটি সেতু পুনর্নির্মাণ ও আংশিক পুনর্নির্মাণ করা হয়। এছাড়া ২০১৯-২১ পর্যন্ত ছয়টি রেল সেতু সংস্কার ও আংশিক পুনর্নির্মাণ করা হয়। রেল সেতু সংস্কার ও পুনর্নির্মাণ রেল বিভাগের একটি চলমান কাজ।

২৫ নম্বর সেতুর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ সেতু ঝুঁকিপূর্ণ ছিল না। তবে সংস্কার কাজ করা হচ্ছে। সেতুর নির্মাণ কাজ চলছে তাই ট্রেনের গতি কমানো হয়েছে। এ অবস্থায় কোনো ধরনের ছিনতাই বা নাশকতার ঘটনা না ঘটে এজন্য সেখানে রাতে পুলিশ টহলের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এসজে/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।