মেসিভক্ত রানা ছেলের নামও রেখেছেন মেসির নামে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া
প্রকাশিত: ০১:২৭ পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০২২

নাম মাসুদ রানা। কিন্তু আর্জেন্টাইন ফুটবল তারকা লিওনেল মেসির অন্ধ ভক্ত হওয়ায় নাম হয়ে যায় ‘রানা মেসি’। তিনি এতটাই অন্ধ ভক্ত যে নিজের সবকিছুতেই জড়িয়েছেন আর্জেন্টিনা ফুটবল দল ও তারকা খেলোয়াড় লিওনেল মেসিকে।

এই আর্জেন্টাইন ভক্ত নিজের মোটরসাইকেলে দলটির পতাকা উড়িয়ে বেড়ান। মাথার চুল কেটে লিখে রাখেন মেসির নাম, শরীরে বানিয়েছেন মেসির ট্যাটু, হাতের ব্রেসলেটে লিখে রেখেছেন মেসির রেকর্ড সংখ্যা। সম্প্রতি ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে নিজের বাড়ির পুরো ভবন রাঙিয়েছেন আর্জেন্টিনার পতাকার রঙে। এমন কী নিজের ছেলের নাম রেখেছেন ‘সান মেসি’।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের কাউতুলী এলাকার আইনজীবী কামালের বড় ছেলে মাসুদ রানা। জন্মগ্রহণ করেন ১৯৮৬ সালে। ওই বছর ম্যারাডোনা জাদুতে ফুটবল বিশ্বকাপ জেতে আর্জেন্টিনা। রানা যখন থেকে বুঝতে শিখেছেন, তখন থেকেই তার জন্ম সালের কথা আসলেই আর্জেন্টিনা দলের ফুটবল বিশ্বকাপ জয়ের কথা শুনে আসছেন। সেই সুবাদে ভক্ত হয়ে যান আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের। এরপর তিনি তারকা ফুটবলার লিওনেল মেসির খেলার প্রেমে পড়েন।

jagonews24

নিজের কাজকর্মে মেসির লাখো ভক্তের মাঝে ব্যতিক্রম হয়ে উঠেছেন মাসুদ রানা। ২০০৬ সালের ফুটবল বিশ্বকাপে লিওনেল মেসির অভিষেকের পর তার প্রেমে পড়ে যান। মেসির অসাধারণ ক্রীড়া নৈপুণ্যে বিশ্বের কোটি ভক্তের মতো মাসুদ রানাও যেন ভেসে যান। ২০০৬ ও ২০১০ বিশ্বকাপ উপলক্ষে আর্জেন্টিনার পতাকা বানালেও বাড়িতে এত বড় পতাকা টানানোর জায়গা না থাকায় বন্ধুর বাড়িতে টানিয়েছিলেন। সেই থেকে স্বপ্ন নিজের ছেলে হলে মেসির নামে নাম রাখবেন। এর মধ্যে নিজের পাকা বাড়ি নির্মাণ করেছেন। বাড়িটি স্বভাবতই আর্জেন্টিনার পতাকার আদলে রাঙিয়েছেন। নিজের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরে মেসির ছয় ফুট ছবি টানিয়ে রেখেছেন। এমনকী ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সিলেও লিওনেল মেসির নাম লেখা। মাসুদ রানা একটি মোটরসাইকেল ব্যবহার করেন। সেটিতেও আর্জেন্টিনা ও মেসির ছোঁয়া। গায়ে জার্সি, মুখের মাস্ক, হাতের ব্যান্ডসহ নানা উপকরণে আর্জেন্টিনা ও মেসি।

২০১৯ সালে লিওনেল মেসির জন্মদিন উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিয়াজ মুহাম্মদ স্টেডিয়ামে আর্জেন্টিনার সমর্থক ও মেসি ভক্তদের নিয়ে ৪৫ পাউন্ডের একটি কেক কেটে আনন্দে মেতেছিলেন মাসুদ। ২০২২ সালে তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের একটি কনভেনশন সেন্টারে লিওনেল মেসির জন্মদিন পালন করেছেন মেসিভক্তদের নিয়ে।

ব্যক্তিজীবনে বিয়ে করার পর প্রথম দুই কন্যা সন্তানের জনক হন। এরপর ছেলে সন্তান জন্ম হওয়ার সাতদিনের মাথায় আনুষ্ঠানিকভাবে নাম রাখেন ‘সান মেসি’ এবং নাম রাখার দিনই নবজাতককে কোলে নিয়ে ফুটবলের স্পর্শ দেন। আশা, একদিন তার ছেলেও ফুটবলার হবে বা একজন আর্জেন্টাইন সমর্থক হিসেবে বাবার বাকি স্বপ্ন পূরণ করবে। বিশ্ব ফুটবলের পরাশক্তি আর্জেন্টিনার ফুটবলকে গভীরভাবে ভালোবাসেন বলেই ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় আর্জেন্টিনার র্যালিতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অসংখ্য সমর্থককে নিয়ে উপস্থিত হন তিনি।

jagonews24

মাসুদ রানা ওরফে রানা মেসি বলেন, ৩৬ বছরে আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ না জিতলেও কোটি কোটি ভক্ত এমনি এমনি তৈরি হয়নি। মেসিসহ দলের খেলোয়াড়দের ফুটবল নৈপুণ্যই অন্য সব দল থেকে তাদের ব্যতিক্রম করে তোলে।

তিনি বলেন, মেসি বাংলাদেশে এসেছেন, দেশকে দেখে গেছেন। বাংলাদেশে লাখো-কোটি ভক্ত আছে তিনি জানেন, এটাই আমিসহ দেশের আর্জেন্টাইন সমর্থকগোষ্ঠীর পরম পাওয়া।

কাউতলি এলাকার শেখ ফারুক মিয়া বলেন, বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা থাকুক আর না থাকুক মাসুদ সব সময় তার মোটরসাইকেলে আর্জেন্টিনার পতাকা উড়িয়ে ঘোরেন এবং তার দোকানেও লিওনেল মেসির ছবি টানিয়ে রাখেন।

আবুল হাসনাত মো. রাফি/এমআরআর/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।