মাদারীপুরে এমপির উপস্থিতিতে ককটেল বিস্ফোরণ, আহত ১০

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মাদারীপুর
প্রকাশিত: ০৯:৫৭ পিএম, ২৯ নভেম্বর ২০২২

মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কৃষি সমাবেশে ককটেল বিস্ফোরণ ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) বিকেলে মাদারীপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য আবদুস সোবহান গোলাপের উপস্থিতিতেই এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন অহিদুল ইসলাম (৩৫), আরিফ খান (৩০), নিজাম খান (৪৫), কাইয়ুম সরদার (৪০), আরজু সরদার (৫৫) প্রমুখ।

পুলিশ, আহত ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে ফসলের উৎপাদন বাড়াতে প্রান্তিক চাষিদের নিয়ে সমাবেশের আয়োজন করা হয়। বিকেলে সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন মাদারীপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য আবদুস সোবহান গোলাপ। বিশেষ অতিথি হিসেবে আসেন মাদারীপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিপ্তরের উপ-পরিচালক মোয়াজ্জেম হোসেন, কালকিনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর গোলাম ফারুক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পিংকি সাহা, থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মারগুব তৌহিদ।

প্রধান অতিথি আসার পর লক্ষ্মীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ফজলুল হক বেপারী ও কালকিনি উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আফজাল মোল্লাও আসেন। পরে তাদের কর্মী-সমর্থকরা দলীয় ব্যানার-ফেস্টুন হাতে কৃষি সমাবেশে আসতে থাকেন। সমাবেশস্থলে আগে প্রবেশ করা নিয়ে উভয়ের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

একপর্যায়ে এমপির উপস্থিতিতেই হাতাহাতি হয়। এ সময় সমাবেশস্থলে ও তার আশপাশে বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে আহত হন কমপক্ষে ১০ জন। আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে পুলিশের সহযোগিতায় পরিস্থিতি শান্ত হয়। পরে সমাবেশ সংক্ষিপ্ত করা হয়।

madaa

এ বিষয়ে আফজাল মোল্লা বলেন, ফজলুল হক বেপারীর লোকজন অতর্কিত এই হামলা চালিয়েছেন। এই ঘটনার বিচার চাই।

ফজলুল হক বেপারী বলেন, ‘আমি বা আমার লোকজন কোনো হামলা বা ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটাইনি। আমাকে রাজনৈতিকভাবে দুষছেন আফজাল ও তার লোকজন।’

কালকিনি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর গোলাম ফারুক বলেন, সমাবেশস্থলে রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে আসায় উত্তেজনা দেখা দেয়। মূলত স্লোগান দেওয়াকে কেন্দ্র করে হাতাহাতি হয়। পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। কিন্তু সমাবেশের কোনো সমস্যা হয়নি।

মাদারীপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিপ্তরের উপ-পরিচালক মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, বাইরের লোকের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে সমাবেশের কোনো সমস্যা হয়নি।

কালকিনি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মারগুব তৌহিদ বলেন, কৃষি সমাবেশের কিছুটা দূরে ককটেল বিস্ফোরণ হয়। দুপক্ষের উত্তেজনা দেখা দিলে এমপির আশ্বাসে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এসআর/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।