পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রীর চুল কেটে নির্যাতন, স্বামী গ্রেফতার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ
প্রকাশিত: ০২:৩১ পিএম, ০১ ডিসেম্বর ২০২২

নওগাঁর মান্দায় পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রীর মাথার চুল কেটে নির্যাতন ও হত্যা চেষ্টার অভিযোগে আব্দুল কুদ্দুস (৩২) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার (৩০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের ছোটমুল্লুক আদর্শ গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর আগে দুপুরে ওই গ্রামে এই নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার আব্দুল কুদ্দুস ওই গ্রামের মৃত বাবর আলী ভুট্টুর ছেলে।

স্থানীয় ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১২ বছর আগে জেলার নিয়ামতপুর উপজেলার রামগাঁ গ্রামের জহির উদ্দিনের মেয়ে নুরজাহান বেগমকে বিয়ে করেন আব্দুল কুদ্দুস। এরমধ্যে তাদের সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ের জন্ম হয়। অভাবী সংসারে জীবিকার তাগিদে কুদ্দুস ঢাকায় রিকশা চালাতেন। পরকীয়া সন্দেহে এক বছর ধরে তাদের সংসারে কলহ শুরু হয়। এ নিয়ে নুরজাহানকে নির্যাতন করতেন তার স্বামী। ২৫ নভেম্বর তিনি বাড়ি আসেন। ওই দিন রাতেই তাদের ঝগড়া হলে স্ত্রীকে বেদম মারধর করেন। পরের দিন রাতেও দ্বিতীয় দফায় মারধর করে কাঁচি দিয়ে স্ত্রী মাথার চুল কেটে দেন আব্দুল কুদ্দুস।

ভুক্তভোগী গৃহবধূ নুরজাহান বেগম বলেন, ২৫ নভেম্বর কুদ্দুস বাড়ি আসার পর ঝগড়া হলে মারধর করে। পরের দিন রাতে দ্বিতীয় দফায় আবারও মারধর করে কাঁচি দিয়ে মাথার চুল কেটে দেন। বুধবারে আবারও মারধর করে গলায় ছুরি ঠেকিয়ে হত্যার চেষ্টা করেন। এ সময় আমাকে বাঁচাতে ছোট মেয়ে বাবার পা জড়িয়ে ধরে কান্নাকাটি শুরু করে। এ সুযোগে বাড়ি থেকে পালিয়ে পাশের জয়বাংলা মোড়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য বিষ্ণুপদ সাহার দোকানঘরে আশ্রয় নিয়ে প্রাণে বেঁচে যাই।

অভিযুক্ত আব্দুল কুদ্দুসও তার স্ত্রীকে নির্যাতন এবং চুল কেটে দেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য বিষ্ণুপদ সাহা বলেন, স্ত্রীর পরকীয়ার সন্দেহে এক বছর ধরে তাদের সংসারে অশান্তি চলছে। আব্দুল কুদ্দুস ঢাকায় রিকশা চালাতো। কয়েক দিন আগে বাড়ি এসে স্ত্রীকে নির্যাতন করে মাথার চুল কেটে দেন। বুধবারও নির্যাতন করে। তার স্ত্রী পালিয়ে এসে আমার দোকানঘরে ঢুকে রক্ষা পায়। এসময় গ্রাম পুলিশের সহায়তায় কুদ্দুসকে আটক করে ভুক্তভোগী গৃহবধূসহ তাকে ইউনিয়ন পরিষদে নেওয়া হয়। পরে পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে যায়। বর্তমানে গৃহবধূ তার স্বামীর বাড়িতেই আছে।

মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর-এ আলম সিদ্দিকী জাগো নিউজকে বলেন, এ ঘটনায় ভুক্তভোগী গৃহবধূ নুরজাহান বেগম বুধবার তার স্বামী আব্দুল কুদ্দুসের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন আইনে মামলা করেছেন। মামলার পর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

আব্বাস আলী/জেএস/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।