সাইকেল আরোহীকে চাপা দেওয়া ট্রাকে মাদক, চালক-হেলপার গ্রেফতার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ
প্রকাশিত: ০১:০০ পিএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২

নওগাঁয় সাইকেল আরোহীকে হত্যা ও মাদক মামলায় ট্রাকচালকসহ দুজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) রাতে নাটোর জেলার সদর থানার রেলস্টেশন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

আটকরা হলেন- কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর থানার ধামগড় গ্রামের ইয়ার হোসেনের ছেলে ট্রাকচালক জাকির হোসেন (২৫) এবং গকুল নগর গ্রামের আবুল খায়ের ছেলে হেলপার আমির হামজা (২৩)।

শনিবার (৩ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় র‌্যাব-৫ নাটোর ক্যাম্প থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য জানা যায়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৬টার দিকে নওগাঁ শহরের বাইপাস বরুনকান্দি মোড় থেকে বদলগাছী আঞ্চলিক মহাসড়কে একটি বেপরোয়া গতির ট্রাক বাইসাইকেল আরোহী মোজাম্মেল হক বাবুকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। ট্রাকের ধাক্কায় তিনি ছিটকে পড়ে গুরুত্বর আহত হয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে অ্যাম্বুলেন্সের ভিতর তিনি মারা যান। মোজাম্মেল হক বাবু সদর থানার হরিপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে।

বাইসাইকেল আরোহীকে ধাক্কা দিয়ে বদলগাছী থানার মিঠাপুর এলাকায় ঘাতকরা ট্রাকটি রেখে পালিয়ে যান। পরে এলাকার লোকজন পুলিশকে খরব দিলে ট্রাকের ভিতর থেকে ১৮ কেজি গাঁজা জব্দ করে। একই সঙ্গে বদলগাছী থানায় একটি মামলা করেন পুলিশ।

অন্যদিকে মোজাম্মেল হক বাবুর ছেলে নওগাঁ সদর থানায় একটি মামলা করেন। মামলার পর র‌্যাব-৫ নাটোর ক্যাম্প কোম্পানি অধিনায়ক ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফরহাদ হোসেন এবং কোম্পানি উপ-অধিনায়ক ও সহকারী পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে অভিযান শুরু হয়। গোয়েন্দা তথ্য ও তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় শুক্রবার রাতে নাটোর জেলার সদর থানার রেলস্টেশন এলাকা থেকে ট্রাকচালক জাকির হোসেন ও হেলপার আমির হামজাকে ট্রাকের কাগজপত্রসহ গ্রেফতার করা হয়। আসামিদের নওগাঁ সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

আব্বাস আলী/জেএস/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।