ভ্যাট সহনীয় পর্যায়ে রাখা হবে : অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:২৩ পিএম, ০৭ জানুয়ারি ২০১৯

নতুন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, সরকারের প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে ও বাজেট সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করতে রাজস্ব বাড়াতে হবে। এজন্য সহনীয় মাত্রায় ভ্যাট ও ট্যাক্স নির্ধারণ করতে হবে। তবে শভভাগ লোক যেন ভ্যাট ও ট্যাক্স দেয় সেটি নিশ্চিত করতে হবে। তাহলে রাজস্বের পরিমাণ বাড়বে।

সোমবার নতুন অর্থমন্ত্রী শপথ নেয়ার পর সচিবালয়ে তার মন্ত্রণালয় কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ভ্যাটহার কয়েক স্তরে হতে পারে। যে পলিসি গ্রহণ করলে মানুষ বেশি বেশি রাজস্ব দেবে সেই পলিসিই গ্রহণ করা হবে। বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষই ভ্যাট দেয় না সবাইকে ভ্যাট ও ট্যাক্সের আওতায় আনতে হবে।

বৈঠকে উপস্থিত মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়ার উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, ‘এবার প্রায় তিন লাখ কোটি টাকা রাজস্ব দিতে হবে। রাজস্ব আদায়ের নতুন খাতগুলোর দিকে দৃষ্টি দিতে হবে এবং দোকানগুলোতে ক্যাশ রেজিস্টার মেশিন বসাতে হবে। এ ছাড়া বন্দরগুলোতে স্ক্যানার বসাতে হবে।’

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, এবার ২ লাখ ৯৬ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে, দুই লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকা দিতে পারবো।’

মন্ত্রী বলেন, ‘সাধারণ মানুষ রাজস্ব দিতে চায়, আমাদের লোকরা যাতে নিতে পারে সেদিকে খেয়াল করতে হবে। একটি উইন উইন অবস্থা তৈরি করতে হবে।’

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমাদের ৩৫ হাজার লোক আছে। প্রয়োজনের লোকবল আরও বৃদ্ধি করে ৫০ হাজারে উন্নীত করতে হবে। প্রতিটি উপজেলায় অন্তত একটি রাজস্ব অফিস করতে হবে। অনুষ্ঠানে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, অর্থসচিব আব্দুর রউফ তালুকদার বক্তব্য দেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা এখানে সবাই অভিজ্ঞ। আপনাদের অভিজ্ঞতা নিয়ে আগামীতে আরো এগিয়ে যেতে চাই। অর্থনীতির অগ্রগতির যে ধারা তা বজায় রাখতে হবে। মন্ত্রণালয়ের কাজে বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ রয়েছে এবং পরিকল্পনা করে এ চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলা করে এগিয়ে যেতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘এখন থেকে ১০ বছর আগে অর্থনীতি নিয়ে লজ্জা পেতাম। আমরা বর্তমানে অনেক অর্জন করেছি। যে গতিতে এগিয়েছি এই গতি ২০৪১ পর্যন্ত চালিযে যেতে হবে, উন্নত বিশ্বের দেশে পরিণত হতে চাই।’

বৈঠকে দেশের সার্বিক অর্থনীতির ওপর একটি প্রতিবেদন মন্ত্রীর হাতে তুলে দেন অর্থ বিভাগের সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার।

এমইউএইচ/এমআরএম/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]