লেনদেন বাড়লেও সূচকের পতন অব্যাহত

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:০৪ পিএম, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

দরপতনের বৃত্তে থেকে বের হতে পারছে না দেশের শেয়ারবাজার। মঙ্গলবার প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সবকটি মূল্যসূচকের পতন হয়েছে। এ নিয়ে চলতি সপ্তাহের তিন কার্যদিবসেই শেয়ারবাজারে দরপতন হলো।

মূল্যসূচকের পতন হলেও এদিন ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ কিছুটা বেড়েছে। সেই সঙ্গে সঙ্গে যে পরিমাণ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে বেড়েছে তার থেকে বেশ। বাজারটিতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১৫৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৪৮টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৫টির দাম।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার পরও ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ১ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৭৩১ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুটি মূল্যসূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ৩ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৯৯৯ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক আগের দিনের তুলনায় ২ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৩০৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

দিনভর বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৯০১ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৭১৯ কোটি ১৩ লাখ টাকা। সে হিসেবে আগের কার্যদিবসের তুলনায় লেনদেন বেড়েছে ১৮২ কোটি ২৬ লাখ টাকা।

টাকার অঙ্কে এদিন ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে ফরচুন সুজ’র শেয়ার। কোম্পানিটির ৭৬ কোটি ৫৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশনের ৪৯ কোটি ৮৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ২৮ কোটি ১৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবলস।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- মুন্নু সিরামিক, গ্রামীণফোন, মুন্নু জুট স্টাফলার্স, নূরানী ডাইং, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, এসকে ট্রিমস এবং জেনেক্স ইনফোসিস।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স ১৪ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৬২০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ২৯ কোটি ৮১ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৬৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৩৪টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১০৬টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টির।

এমএএস/জেএইচ/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :