নারীদের নজর কাড়ছে থাই পণ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩২ পিএম, ৩০ জানুয়ারি ২০২০

বাণিজ্য মেলায় বিদেশি ক্যাটাগরিতে থাই প্যাভিলিয়ন মানেই দৃষ্টিনন্দন স্থাপনার নিদর্শন হিসেবে দাঁড়িয়েছে। বরাবরের মতো ২৫তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় দেখা যাচ্ছে দৃষ্টিনন্দন দুটি থাই প্যাভিলিয়ন।

মেলা প্রাঙ্গণে এ দুটি প্যাভিলিয়নে থাইল্যান্ডের বিভিন্ন পণ্য শোভা পাচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে মেয়েদের জুয়েলারি সামগ্রী, ছোটদের খেলনা, ইলেকট্রনিক সামগ্রী, ফুড ও বেভারেজ, হেলথ ও বিউটি হারবাল, উপহার সামগ্রী, বিভিন্ন ফল, রান্না সামগ্রী, চাটনি, সেন্ডেল, ব্যাগসহ অসংখ্যা পণ্য।

প্রসাধনী, খাদ্যপণ্য, খেলা ও ঘর সাজানোর বাহারি পণ্যে ব্যবসায়ীরা স্টল সাজালেও নারীদের পণ্যই থাই প্যাভিলিয়নের ক্রেতাদেরই একটু বেশি আকর্ষণ করছে। হাত, গলা, নাক ও কানের বাহারি জুয়েলারি নারীদের যেমন নজর কাড়ছে, তেমনি নজর কাড়ছে বাহারি হ্যান্ড ব্যাগ। এর সঙ্গে ঘর সাজানোর শো পিচ।

jagonews24

থাই প্যাভিলিয়নে কথা বলে জানা গেছে, প্যাভিলিয়ন দুটিতে যারা স্টল দিয়েছেন তার বেশিরভাগই বাংলাদেশের ব্যবসায়ী। থাইল্যান্ড থেকে পণ্য এনে তারা বিক্রি করছেন। মেলার বাইরেও এসব ব্যবসায়ীদের প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

থাই প্যাভিলিয়নের একটি স্টল থেকে জুয়েলারি কেনা মিরা আক্তার বলেন, থাই জুয়েলারির দাম একটু বেশি। তবে মান অনেক ভালো। থাই জুয়েলারি দেখতে যেমন সুন্দর, তেমনই টেকসই। এ জন্য কিছু পণ্য কিনলাম।

তিনি বলেন, নিউমার্কেটেও থাইল্যান্ডের বিভিন্ন জুয়েলারি সামগ্রী পাওয়া যায়। তবে সেসব পণ্যের সঙ্গে বাণিজ্য মেলার পণ্যের কিছুটা পার্থক্য রয়েছে। মেলায় পণ্যের সম্ভার তুলনামূলক বেশি। আবার তুলনামূলক কম দামেও কিনতে পারা যায়।

পুষ্প জাহান নামের আরেক জন বলেন, থাইল্যান্ডের পণ্যের মান অনেক ভালো। দুই বছর আগে একটি হ্যান্ড ব্যাগ কিনেছিলাম, আজও ব্যাগটি ভালো আছে। আজ আরেকটি ব্যাগ কেনার ইচ্ছা আছে। এছাড়া কিছু জুয়েলারি সামগ্রী ও দুইটি শো পিচ কিনবো বলে জানান তিনি।

jagonews24

এদিকে থাইল্যান্ডের পণ্যের পাশাপাশি থাই প্যাভিলিয়নের স্থাপনাও মেলার ক্রেতা-দর্শনার্থীদের নজর কাড়ছে। কেউ কেউ থাই প্যাভিলিয়নের স্থাপনা দেখে মনে মনে থাইল্যান্ড দেখার আনন্দ উপভোগ করছেন।

মিলন নামের একজন বলেন, আমি মেলার পুরোটাই ঘুরে দেখেছি। এর মধ্যে থাইল্যান্ডের প্যাভিলিয়ন সব থেকে বেশি ভালো লেগেছে। প্যাভিলিয়নের মাধ্যমে থাইন্যান্ডের ঐতিহ্য তুলে ধরা হয়েছে। গৌতম বুদ্ধ ও থাই রাজার ছবি প্যাভিলিয়নের সামনে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। মোট কথা থাই প্যাভিলিয়নের দৃশ্য দেখতে বেশ ভালো লাগছে। দেশের প্যাভিলিয়নগুলোও সুন্দর, তবে এতো সুন্দর না।

এমএএস/এএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]