‘পোশাকশিল্পের সুযোগ কাজে লাগাতে সরকারি সহায়তা জরুরি’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৫৯ পিএম, ২৬ জানুয়ারি ২০২২
প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিবের সঙ্গে বিজিএমইএ নেতারা। ছবি: সংগৃহীত

তৈরি পােশাকশিল্পের সুযােগ কাজে লাগাতে সরকারি সহায়তা জরুরি বলে জানিয়েছে তৈরি পোশাক মালিক ও রপ্তানিকারক সমিতি বিজিএমইএ সভাপতি মো. ফারুক হাসান।

তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের তৈরি পােশাকশিল্পের উদীয়মান সুযােগুলােকে কাজে লাগানাে এবং সেই সঙ্গে শিল্পের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকারি সহায়তা সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে।

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউসের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় বিজিএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, সহ-সভাপতি শহীদউল্লাহ আজিম, সহ-সভাপতি মিরান আলী ও পরিচালক অসিফ আশরাফ উপস্থিত ছিলেন।

বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আহমদ কায়কাউসের কাছে এক কোটি ৫০ লাখ টাকার অনুদানের চেক হস্তান্তর করেন। বিজিএমইএ করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তায় প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে এ অনুদান দেয়।

বিজিএমইএ নেতারা ড. আহমদ কায়কাউসের সঙ্গে বাংলাদেশের তৈরি পােশাকশিল্পের চ্যালেঞ্জ মােকাবিলা এবং সম্ভাবনা ও সুযােগ কাজে লাগানাের কৌশলগুলাে নিয়েও আলােচনা করেন। তাদের আলােচনার মধ্যে বাংলাদেশের এলডিসি ক্যাটারগরি থেকে উত্তরণ ও সেই সঙ্গে রপ্তানিমুখী বানিজ্যে সম্ভাব্য প্রভাব এবং এলডিসি পরবর্তী সময়ের নতুন চ্যালেঞ্জ মােকাবিলায় প্রস্তুতি নেওয়ার মতাে বিষয়গুলােও অন্তর্ভুক্ত ছিলা।

তারা চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের ফলে বৈশ্বিক পােশাকশিল্পে যে পরিবর্তনের ধারা সূচিত হচ্ছে, তার সঙ্গে আগামী দিনগুলােতে খাপ খাইয়ের নেওয়ার জন্য শিল্পের অগাধিকারগুলাে নিয়েও আলােচনা করেন।

ইএআর/এএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]